আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দেশে আরও ছড়াচ্ছে করোনার সংক্রমণ। রাজ্যগুলির মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত মহারাষ্ট্রের। আর এর মধ্যেই চিন্তা আরও বাড়াল, গত ৪৮ ঘণ্টায় এশিয়ার বৃহত্তম বস্তি ধারাভিতে তিনজন করোনা আক্রান্তের হদিশ মেলার বিষয়টি। ইতিমধ্যে একজন সংক্রমিতের মৃত্যুও হয়েছে। এদিকে শুক্রবার সকালে আরও এক চিকিত্‍সকের দেহে করোনার জীবাণুর হদিশ মিলেছে। তিনি হাসপাতালে চিকিত্‍সাধীন। তাঁর গোটা পরিবারকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। এমনকী গোটা বিল্ডিং সিল করে দেওয়া হয়েছে। এদিকে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা হওয়ায় সামাজিক দূরত্ব মানছেন না বাসিন্দারা। ফলে গোষ্ঠী সংক্রমণের আশঙ্কা আরও জোরালো হচ্ছে।
এর আগে গত বুধবার বুধবার সন্ধ্যায় ধারাভিতে প্রথম করোনা আক্রান্তের খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল। এর ঘণ্টা খানেকের মধ্যেই মৃত্যু হয় বছর ওই প্রৌঢ়ের। মুম্বইয়ের সিওন হাসপাতালে চিকিত্‍সাধীন ছিলেন তিনি। এরপর বৃহস্পতিবার ধারাভি থেকেই দ্বিতীয় করোনা আক্রান্তের খবর মেলে। তিনি বৃহন্মুম্বই পুরসভার সাফাই কর্মী ছিলেন। ওরলি এলাকার বাসিন্দা ছিলেন তিনি। কিন্তু ধারাভি এলাকায় সাফাই কাজে যুক্ত ছিলেন তিনি।


এশিয়ার সবচেয়ে বড় বস্তি এলাকা মুম্বইয়ের ধারাভিতে মিলল প্রথম করোনা আক্রান্তের খোঁজ

প্রসঙ্গত, এশিয়ার বৃহত্তম বস্তি হল ধারাভি। মাত্র ৬১৩ হেক্টর এলাকায় বাস প্রায় ১৫ লক্ষ মানুষের। এমনকি বেশকিছু কারখানা রয়েছে। সেখানেও অনেকে কাজ করেন। মুম্বইয়ের স্বাস্থ্য দপ্তরের তথ্য বলছে, এই বস্তিটিতে অনেক টিবি রোগী রয়েছেন। প্রত্যেক মরসুমে এখানে ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়ার মতো রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয় নিয়ম করে। সেখানে করোনা ভাইরাসের মতো এত ছোঁয়াচে একটি সংক্রমণ থেকে কী করে মানুষ রক্ষা পাবে, তা নিয়ে অনেকেই চিন্তিত। অনেকেই সন্দেহ করছেন, সংক্রমণ ইতিমধ্যেই ছড়িয়ে গেছে। পর্যাপ্ত টেস্ট হচ্ছে না বলে হয়তো তা সামনে আসছে না। আর এই এলাকায় একবার সংক্রমণ ছড়ালে তা গোষ্ঠী সংক্রমণের রূপ নিতে সময় নেবে না। এমনটাই মত বিশেষজ্ঞদের।

জনপ্রিয়

Back To Top