আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‘‌বায়ু দূষণের ফলে মৃত্যু হয়েছে, এরকম কোনও নির্ভরযোগ্য তথ্য সরকারের কাছে নেই।’‌ সোমবার রাজ্যসভায় আশ্চর্য এই দাবী করে বসেন পরিবেশ মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। 
দ্য ল্যানসেট কাউন্টডাউন রিপোর্ট ২০১৯ অনুযায়ী বায়ু দূষণের প্রভাবে ২০১৬ সালে পাঁচ লাখেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। কয়লা থেকে নির্গত ক্ষতিকর বস্তুর কারণে ৯৭,০০০ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। এই বিষয়ে তাঁকে প্রশ্ন করায় তিনি এই কথা বলেন। তাঁর মতে, পরিবেশ দূষণ ছাড়াও খাদ্যাভ্যাস, পেশাজনিত সমস্যা, আর্থসামাজিক অবস্থা, আগের স্বাস্থ্যজনিত সমস্যা, বংশের রোগ একজন মানুষের শারীরিক সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। ২০১৪ থেকে ২০১৮–এর মধ্যে প্রকাশিত বায়ুতে দূষণের মাত্রার যে তথ্য পাওয়া গেছে সেই অনুযায়ী ভারতের সব শহরে সালফার ডায় অক্সাইড ও নাইট্রোজেন ডায় অক্সাইডের পরিমাণ সঠিক মাত্রায় আছে। ১৮টি শহরের বায়ুতে পিএম১০ এবং ১২টি শহরের বায়ুতে পিএম২.‌৫ (‌ক্ষতিকর পদার্থ)–এর মাত্রা কমের দিকেই এখন। 
কিন্তু মন্ত্রীর আশ্বাসে বায়ু দূষণ কমে যাচ্ছে, এমন ঘটনা ঘটছে না এই দেশে। ২০১৭ সালে ১২.‌৪ লাখ মানুষ মারা গেছেন বায়ু দূষণে। এঁদের মধ্যে ৬.‌৭ লাখ মানুষ বাড়ির বাইরের বায়ু দূষণে আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং ৪.‌৮ লাখ গৃহস্থালি বায়ু দূষণে।  ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top