আজকাল ওয়েবডেস্ক: ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে ‌সংগঠন বিস্তার করছে জামাত–উল–মুজাহিদিন। বাংলাদেশের এই জঙ্গি সংগঠন বিহার, কর্নাটক, কেরল এবং মহারাষ্ট্রে ইতিমধ্যেই জাল ছ‌ড়িয়েছে বাংলাদেশের এই জঙ্গি সংগঠন বলে খবর। এরা আসছে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী হিসেবে। সোমবার নয়াদিল্লিতে এটিএস এবং এসটিএফের বৈঠকে এই তথ্য তুলে ধরেন জাতীয় তদন্তকারী সংস্থার অধিকর্তা যোগেশ চান্দের মোদি।
১৯৮৪ ব্যাচের এই আইপিএস ২৫ জন জামাত জঙ্গির তালিকা তৈরি করেছেন তিনি। একইসঙ্গে সেই তালিকা বিভিন্ন রাজ্যে পাঠিয়ে দিয়েছেন। এদিন এনআইএ অধিকর্তা বলেন, ‘‌২৫ জন জামাত জঙ্গির একটি তালিকা প্রতিটি রাজ্য সরকারকে পাঠানো হয়েছে। রাজ্য সরকারগুলির সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করে এই সমস্যা মোকাবিলার চ্যালেঞ্জ নিতে হবে। যেসব ব্যবস্থা নেওয়া হবে তার মধ্যে রয়েছে জঙ্গিদের টাকার জোগান বন্ধ করা, ধর্মীয় উগ্রবাদ বন্ধ করা এবং ডিজিটাল প্রমাণপত্রের ওপরে নজর রাখা।’‌
সূত্রের খবর, ঢাকায় অবস্থিত পাকিস্তান হাই–কমিশন জামাত–উল–মুজাহিদিন জঙ্গি সংগঠন টাকার জোগানের সঙ্গে যুক্ত। আর এদের ব্যবহার করে জাল টাকা অসম ও পশ্চিমবঙ্গে ঢোকায় পাকিস্তান। উল্লেখ্য, ১৯৯৮ সালে ঢাকার কাছে পালানপুরে তৈরি হয় জামাত–উল–মুজাহিদিন। বাংলাদেশ সরকার এই সংগঠনকে নিষিদ্ধ করে দেয় ২০০৫ সালে।

জনপ্রিয়

Back To Top