আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ একটি দাঁতাল লোকালয়ে ঢুকে পড়েছিল। টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে তাকে পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠল দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে তামিলনাড়ু নীলগিরি জেলার মুদুমালাইতে। বন দপ্তর সূত্রে খবর, একটি পূর্ণবসয়স্ক দাঁতাল মুদুমালাইতে হঠাৎই ঢুকে পড়ে খাবারের খোঁজে। সেখানে একটি রিসর্টের সামনে হাতিটি গেলে তাকে লক্ষ্য করে জ্বলন্ত টায়ার ছুড়ে মারেন রিসর্টেরই এক কর্মী। হাতির মাথার ঠিক উপরে আটকে যায় টায়ারটি। সেই অবস্থায় পরিত্রাহী চিৎকার করতে করতে হাতিটি দৌড়তে থাকে। তখনও টায়ারটি তার মাথায় জ্বলছিল। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে যান বন দপ্তরের কর্মীরা। গুরুতর জখম অবস্থায় হাতিটিকে উদ্ধার করেন তাঁরা। মুদুমালাই বন দপ্তরের এক কর্মী জানিয়েছেন, হাতিটির কান দিয়ে রক্ত গড়াচ্ছিল। তাকে বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা করা হয়। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি।
এরপরই একটি বিশেষ দল গঠন করে তদন্তে নামে বন দপ্তর। শুক্রবার সন্ধেয় রিসর্টের মালিক প্রসাদ এবং এক কর্মী রেমন্ডকে গ্রেপ্তার করেন তদন্তকারীরা। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আরও এক ব্যক্তির খোঁজ চলছে। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, রিসর্টের মালিক এবং ওই কর্মীর ফোন থেকে হাতিকে জ্বলন্ত টায়ার ছুড়ে মারার ভিডিও উদ্ধার হয়েছে। শুক্রবার বন দপ্তরের তরফে সেই ভিডিও প্রকাশ করা হয়। বন দপ্তরের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, রিসর্টের কর্মীরা হাতিটিকে ভয় দেখানোর চেষ্টা করছিলেন। তাঁরা আরও জানান, এটা যদি কোনও লাঠি বা সেই জাতীয় কিছু হত তা হলে সেটা হাতির গায়ে ধাক্কা লেগে পড়ে যেত। কিন্তু টায়ার ছুড়ে মারায় সেটা হাতির মাথায় এবং কানে জড়িয়ে যায়। পরে স্থানীয় একটি বাঁধের কাছ থেকে হাতিটিকে উদ্ধার করা হলেও মৃত্যু হয় তার।
 

জনপ্রিয়

Back To Top