আবু হায়াত বিশ্বাস, দিল্লি: লোকসভা নির্বাচনে টিকিট পাননি বা লড়তে চাননি এমন বেশ কয়েকজন বর্ষীয়ান নেতাকে রাজ্যপাল পদে বসাতে চলেছে বিজেপি। 
দেশের ১৩টি রাজ্যের রাজ্যপালরা ৪ বছরের বেশি সময় ধরে কাজ করছেন। দু’‌জনের মেয়াদ ৫ বছর পেরিয়ে গেছে। বাকিদের মধ্যে ৮ জনের মেয়াদ আগামী ২ থেকে ৪ মাসের মধ্যে শেষ হবে। বিজেপি সূত্রের খবর, ওই রাজ্যগুলির বেশ কয়েকটিতে সংসদীয় রাজনীতি থেকে সরে–যাওয়া নেতাদের রাজ্যপাল পদে বসানোর ভাবনা‌চিন্তা শুরু করেছে নরেন্দ্র মোদি–‌অমিত শাহরা। সূত্রের খবর, প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ, লোকসভার প্রাক্তন স্পিকার সুমিত্রা মহাজন, কলরাজ মিশ্র, বন্ডারু দত্তাত্রেয়, ভগৎ সিং কোশ্যারি, কারিয়া মুন্ডা, বিজয়া চক্রবর্তীদের নাম নিয়ে আলোচনা চলছে। এমনকী ৮৫ বছর বয়সি মুরলীমনোহর যোশির নামও আলোচনায় আছে বলে বিজেপি সূত্রের খবর। এখন অনেক রাজ্যেই যাঁরা রাজ্যপাল পদে আছেন, তাঁরা ‘‌লাইটওয়েট’‌। তাই তাঁদের বদলে ওজনদার কিছু নেতা–নেত্রীকে বসানোর কথা ভাবছে বিজেপি।
গত কয়েক দিনে কানাঘুষো চলছিল, প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে অন্ধ্রের রাজ্যপাল করা হতে পারে। গতকাল বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম এই নিয়ে ‘‌ব্রেকিং নিউজ’‌ চালাতে থাকে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হর্ষ বর্ধন টুইট করে সুষমাকে শুভেচ্ছাও জানিয়ে বসেন। কিছুক্ষণ পরে তিনি ওই টুইট মুছেও দেন। বেশি রাতে সুষমা স্বরাজ টুইট করে জানিয়ে দেন, অন্ধ্রপ্রদেশের রাজ্যপাল নিয়ে যে জল্পনা ছড়িয়েছে তা সঠিক নয়। উল্লেখ্য, শারীরিক কারণে লোকসভা নির্বাচনে সুষমা স্বরাজ লড়েননি। তিনি মন্ত্রিসভায় থাকবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছিলেন। অন্ধ্রপ্রদেশের বর্তমান রাজ্যপাল ই এস এল নরসিংহনের কার্যকাল ১০ বছর পূর্ণ হবে। ইউপিএ সরকারের আমলে তাঁকে রাজ্যপাল করা হয়েছিল। এবার তিনি সরবেন, তা একপ্রকার নিশ্চিত। অন্ধ্রের পাশাপাশি তেলেঙ্গানারও দায়িত্ব সামলাচ্ছেন তিনি। জুলাই মাসে মেয়াদ শেষ হতে চলেছে গুজরাটের রাজ্যপাল ওমপ্রকাশ কোহলির। ২৩ জুলাই বাংলার রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর মেয়াদ শেষ হবে। ২৬ জুলাই ত্রিপুরার রাজ্যপাল কে এস সোলাঙ্কি ও ৩১ আগস্ট মেয়াদ শেষ হবে কর্ণাটকের রাজ্যপাল বিজুভাই বালার। এছাড়াও রাজস্থানের কল্যাণ সিং, মহারাষ্ট্রের বিদ্যাসাগর রাও, উত্তরপ্রদেশের রাম নাইক, গোয়ায় মৃদুলা সিনহা, ঝাড়খণ্ডের দ্রৌপদী মুর্মু, কেরলের পি সদাশিবম, নাগাল্যান্ডের পদ্মনাভ আচার্যের রাজ্যপাল হিসেবে মেয়াদ কিছু মাসের মধ্যে শেষ হয়ে যাবে। একই রাজ্যপাল একাধিক রাজ্যের দায়িত্ব সামলাচ্ছেন, এমন নজিরও রয়েছে। ওই রাজ্যগুলিতেও বসানো হতে পারে নতুন মুখ। মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তিশগড়ে রাজ্যপাল একজনই। কার্যকালের মেয়াদ বাড়ানো না হলে চলতি বছরেই ১১ রাজ্যে রাজ্যপাল বদল হবে। ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে প্রায় সব ক’‌টি রাজ্যের রাজ্যপাল সাক্ষাৎ করেছেন। এদিনই দিল্লিতে অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করেছেন রাজস্থান, গুজরাট, কর্ণাটক, হিমাচল প্রদেশ ও উত্তরাখণ্ডের রাজ্যপালরা।‌

জনপ্রিয়

Back To Top