আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মানসিক দিক থেকে বিশেষভাবে সক্ষম। ২২ বছরের সেই তরুণী ধর্ষিত হয়েছিলেন। আদালতে গর্ভপাতের আবেদন করেছিল পরিবার। তাতে সম্মতি দিল না ওডিশা হাইকোর্ট। রায় দিল, তরুণীর প্রসব এবং তার পর সন্তানের সমস্ত দায়িত্ব নেবে ওডিশা সরকার। এজন্য এখনই তরুণীকে পাঁচ লক্ষ টাকা দেবে রাজ্য সরকার। 
আদালত জানাল, নিগৃহীতা এখন ২৪ সপ্তাহের গর্ভবতী। এই অবস্থায় গর্ভপাত করালে তাঁর প্রাণের ঝুঁকি রয়েছে। তাই গর্ভপাতের আবেদন খারিজ করে বিচারপতি জানালেন, তরুণীর ছেলে হলে তিন লক্ষ টাকা দেবে সরকার। আর মেয়ে হলে পাঁচ লক্ষ টাকা। নিগৃহীতা ক্ষতিপূরণ প্রকল্পের আওতায়ও সাহায্য পাবেন তিনি।
রায়ে হাইকোর্টের বিচারপতি এও জানালেন, ‘‌তরুণীর মানসিক অবস্থা এবং তাঁর পরিবারের আর্থিক অবস্থা বিবেচনা করে বোঝা যাচ্ছে, যে হবু মায়ের এ সময় যত্ন দরকার। তরুণীকে উৎকৃষ্ট চিকিৎসা পরিষেবা দিতে হবে। পর্যবেক্ষণে রাখতে হবে। এমনকী শিশু জন্মের পরেও। এসসিবি মেডিক্যাল কলেজ এবং হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা হবে।’‌ বিচারপতি বিশ্বনাথ রথ আরও বললেন, যে ধর্ষিত তরুণীর চিকিৎসা, ওষুধ, হাসাপাতালে যাওয়ার খরচও রাজ্য সরকারকেই বহন করতে হবে। এমনকী সন্তান জন্মের পর তাঁর শিক্ষার দায়িত্বও নিতে হবে সরকারকে। 
নিগৃহীতা জগৎসিংপুর জেলার কুজাঙ্গা থানা এলাকার বাসিন্দা। তাঁকে ধর্ষণ করে স্থানীয় এক জন। ১৩ আগস্ট তাঁর ধর্ষণের কথা জেনে থানায় এফআইআর করে পরিবার। নিগৃহীতার মা আদালতে গর্ভপাতের অনুমতি চায়। সে সময়ই নিগৃহীতা ২০ সপ্তাহের গর্ভবতী। ‌ 
এ ধরনের পরিস্থিতি ভবিষ্যতে কীভাবে সামাল দেওয়া যাবে, সেই নিয়ে রাজ্য সরকার, প্রশাসন, জেলা আদালত, পুলিশ, চিকিৎসকদের নির্দেশিকা দিয়েছে হাইকোর্ট। 

জনপ্রিয়

Back To Top