‌‌সংবাদ সংস্থা, মুম্বই ও ভুবনেশ্বর, ৩০ মে- রাঘববোয়াল নন। আবার চুনোপুঁটিও নন। বলিউডে চরিত্রাভিনেতা হিসেবে স্বমহিমায় উজ্জ্বল সোনু সুদ। তাবড় নায়কদের পাশে দাপটে লড়ে যান, কখনও ভাই, বন্ধু, যেমন ‘‌যোধা আকবর’–এ, কখনও বা ‘‌দবং’–এ, খলচরিত্রে। বলিউডের নামীদামিদের তালিকায় দূরদূরান্তেও তাঁর ঠাঁই হয় না। পাঞ্জাবের মোগায় জন্ম, মহারাষ্ট্রের নাসিকে বেড়ে ওঠা, বছর ছেচল্লিশের সেই সোনুই কিন্তু এখন পর্দার রিল ফুঁড়ে রিয়েল লাইফের নায়ক। ‘‌পরিযায়ীদের ত্রাতা’‌ এই নতুন পরিচয়ে পরিচিত। গত একমাস ধরে সাধ্যের বাইরে গিয়ে লকডাউনে কর্মহীন, সহায়–সম্বলহীন পরিযায়ীদের ঘরে ফেরাচ্ছেন নিজের উদ্যেগে। এই যেমন গতকাল কেরলের এর্নাকুলামে আটকে–পড়া ১৬৯ জন মহিলা শ্রমিককে তাঁদের রাজ্য ওডিশায় পাঠালেন একেবারে এয়ারলিফট করে!‌ 
এর্নাকুলামের এক পোশাকের কারখানায় এমব্রয়ডারির কাজ করতেন এই মেয়েরা। লকডাউনে রাজ্যে রাজ্যে অন্য পরিযায়ী শ্রমিকদের মতো তাঁরাও আটকে পড়েন ভিন্‌রাজ্যে। মালিক বেতন বন্ধ করে দিয়েছেন। কারখানা বন্ধ বলে মাথার ওপরের ছাদটুকুও সরেছিল। একটা ঘরে কোনওরকমে গাদাগাদি করে দিন কাটাচ্ছিলেন, যা এই মহামারীর আবহে মারাত্মক। দিন কয়েক আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের শোচনীয় অবস্থার কথা পোস্ট করেন। পোস্টটি দেখে সোনুর সঙ্গে যোগাযোগ করেন তাঁর ভুবনেশ্বরের এক বন্ধু। এরপর আর এক মুহূর্তও দেরি করেননি অভিনেতা। বেঙ্গালুরু থেকে একটি বিমান আনান। সেটি ভুবনেশ্বরে পাঠাতে ওডিশা সরকারের অনুমতি নেন। অনুমতি পেয়েই বেঙ্গালুরু থেকে এয়ার এশিয়া–র বিমানটি এর্নাকুলাম থেকে আটকে–পড়া মহিলা শ্রমিকদলকে উদ্ধার করে। সঙ্গে নেয় ওডিশা থেকে আসা আরও ৯ পরিযায়ী শ্রমিককে। তাঁদের নিয়ে ভুবনেশ্বর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। সমস্ত খরচ বহন করেন সোনু। 
ভুবনেশ্বরে ফিরে দলের একজন জানান, ঘরে ফেরার সমস্ত আশাই ছেড়ে দিয়েছিলেন। তাঁর কথায়, ‘‌ওডিশার শ্রম দপ্তরের একজনের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পেরেছিলাম। তিনি বলেন, আমাদের ওডিশার ট্রেনে তুলে দেবেন। তার আগেই বিমান পাঠান সোনু সুদ। তাঁকে ধন্যবাদ। তাঁর জন্যই ফেরা হল।’‌
ভুবনেশ্বর পৌঁছোনোর পর বাসে করে ওই ১৬৭ জন মহিলা শ্রমিক ছাড়া আরও ৯ জনকে বিশেষ বাসে করে মারশাগাই ব্লকের কোয়ারেন্টিন সেন্টারে পাঠানো হয়। সেখানে ১৪ দিন কাটিয়ে তাঁদের কেন্দ্রপাড়ার রাজনগরের বাড়ি পাঠানো হবে। যোগাযোগ করলে ভবিষ্যতে ওডিশার আরও শ্রমিককে রাজ্যে ফেরাবেন। রাজনগরের কংগ্রেস বিধায়ক অংশুমান মোহান্তিকে আশ্বাস দিয়েছেন সোনু।
গত এক মাস ধরে এই কাজেই মনপ্রাণ ঢেলেছেন অভিনেতা। নিজের খরচে বাস ভাড়া করে, মুম্বইয়ে আটকে–পড়া ১২ হাজার পরিযায়ী শ্রমিককে তাঁদের রাজ্য বিহার, উত্তরপ্রদেশ, কর্ণাটকে পাঠিয়েছেন। 
এভাবেই সারা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে–পড়া পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য একটি টোলফ্রি হেল্পলাইন চালু করেছেন। এমনকী নিজের হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরও দিয়েছেন। আটকে–পড়া পরিযায়ীদের খবর দিতে চাইলে, তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্টেও যোগাযোগ করা যায়। এছাড়া লকডাউন জারির কয়েকদিনের মধ্যে তাঁর মুম্বইয়ের হোটেলটি বিপন্ন পরিযায়ীদের থাকার জন্য দিয়েছেন। সোনু এখন সারা দিন এই কাজেই ব্যস্ত। পরিযায়ীরা বাড়ি ফিরে খবর দিলে, তবেই তাঁর স্বস্তি।‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top