আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস ধর্ষণ কিনা। চলতি সপ্তাহে একটি মামলায় ফের এই প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। আবেদনকারী যুবতীর অভিযোগ ছিল, ২০০৯ সালে এক চিকিৎসকের সঙ্গে ফার্মেসির ছাত্রী ওই যুবতী ভালোবাসায় জড়িয়ে পড়েন। চিকিৎসক তাঁকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেন। ২০১৩–র এপ্রিলে যুবতী চিকিৎসকের কাছে গেলে তাঁরা সহবাস করলেও বিয়েতে টালবাহানা করছিলেন চিকিৎসক। ওই বছরই জুনে ছাত্রী জানতে পারেন, চিকিৎসক অন্য কাউকে বিয়ে করেছেন। এরপরই তাঁর নামে ধর্ষণের অভিযোগ আনেন যুবতী। সেই মামলার রায়দান নিয়ে একসপ্তাহ তর্কবিতর্ক চলার পর সুপ্রিম কোর্ট রায় দেয়, ধর্ষণে কখনও ধর্ষিতার মত নেওয়া হয় না। বিয়ের প্রতিশ্রুতি থাকলে বিয়ের আগে সহবাস কেউ করতেই পারেন। কিন্তু সহবাস কখনও বিয়ের উপহার হিসেবে গণ্য হতে পারে না। সব ক্ষেত্রেই প্রাকবিবাহ সহবাস বিয়ে পর্যন্ত গড়ায় না। কোনও মহিলাকে বিয়ের মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে সঙ্গমের পর প্রতারণা করলে সেই পুরুষকে প্রতারক বা মিথ্যাবাদী বলা যেতে পারে। কিন্তু ধর্ষক তাদের মধ্যে পড়ে না। কারণ প্রতারণাকে ধর্ষণ বললে ধর্ষণের মতো জঘন্য অপরাধের ভার অনেক হাল্কা হয়ে যায়। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top