আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দশ মাস বেতন পাননি। আর তার জেরে অফিসের মধ্যেই গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করলেন সরকারি টেলিকম সংস্থা বিএসএনএলের এক অস্থায়ী কর্মী। জানা গিয়েছে, ৫২ বছর বয়সি ওই কর্মীর নাম রামকৃষ্ণণ। বৃহস্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে কেরলের মলাপ্পুরম জেলার নিলাম্বুর এলাকায়। মৃত ব্যক্তির স্ত্রী এবং দুই সন্তান রয়েছে। 
জানা গিয়েছে, বিএসএনএলের জন্মলগ্ন থেকেই চুক্তিভিত্তিক সাফাইকর্মী হিসেবে কাজ করে আসছিলেন রামকৃষ্ণন। ৩০ বছর ধরে কাজ করার পরেও স্থায়ী হতে পারেননি তিনি। উল্টে গত ১০ মাস ধরে বেতন পাননি। ফলে সংসারে হাল বেহাল হয়ে পড়েছিল। এই নিয়েই গত কয়েকদিন অবসাদেও ভুগছিলেন। আর বৃহস্পতিবারই নিয়ে ফেললেন চরম এই সিদ্ধান্ত। অফিসেই করে বসলেন আত্মহত্যা। এই প্রসঙ্গে বিএসএনএলের চুক্তিভিত্তিক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোহন বলেন, ‘‌এই বছরের জানুয়ারি মাস থেকে মাইনে পাচ্ছেন না বিএসএনএলের মালাপুরম জেলার চুক্তিভিত্তিক কর্মীরা। পাশাপাশি সপ্তাহে ছ’‌দিনের জায়গায় মাত্র তিনদিন কাজ দেওয়া হয়েছে। এমনকী দিনে ছ’‌ঘণ্টার জায়গায় কাজ করানো হচ্ছে মাত্র তিনঘণ্টা। এই সমস্ত ঘটনা রামকৃষ্ণনকে গভীর আর্থিক সংকটের মধ্যে ফেলে দিয়েছিল। এর বিরুদ্ধে বেশ কয়েকমাস ধরে প্রতিবাদ কর্মসূচিতেও অংশ নিচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর সামলাতে পারলেন না। আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন।’‌ 
দীর্ঘদিন ধরেই বঞ্চনার শিকার বিএসএনএলের কর্মীরা। এমনকী আর্থিক সংকটে ভোগা এই সংস্থাকে নিয়ে উদাসীন রয়েছে কেন্দ্রও। সরকারি সংস্থার পরিবর্তে রিলায়েন্স জিও–কে বাড়তি সুবিধে দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে। সম্প্রতি এমটিএনএল এবং বিএসএনএল–কে বাঁচাতে উদ্যোগ নিলেও তেমন কোনও পদক্ষেপ ঘোষণা করেনি সরকার। আর তারই প্রভাব পড়ছে কর্মীদের উপর। বিভিন্ন মহলে খবরও শোনা গিয়েছিল যে, আগামিদিনে বিএসএনএলকে বিক্রিও করে দিতে পারে সরকার। যদিও সেই খবর উড়িয়ে দিয়ে কেন্দ্র জানিয়েছিল, সরকারি এই টেলিকম সংস্থাকে কখনই বিক্রি করা হবে না।‌

জনপ্রিয়

Back To Top