আজকালের প্রতিবেদন‌, দিল্লি: ভোটের মুখে দলত্যাগের হিড়িক। গত এক মাসে শুধু উত্তরপ্রদেশে ২৮ জন বিরোধী নেতা–‌নেত্রী বিজেপি–‌তে নাম লিখিয়েছেন। আবার বিজেপি–র সাংসদ সাবিত্রীবাই ফুলে কংগ্রেসের প্রার্থী হয়েছেন। এতদিন গুজরাটের কংগ্রেসি বিধায়করা এক এক করে বিজেপি–‌তে যাচ্ছিলেন। শুক্রবার তার উল্টো ঘটনা ঘটেছে। গত আড়াই বছর ধরে গুজরাটে পাটিদার আন্দোলনের অন্যতম মুখ রেশমা প্যাটেল কয়েক মাস আগে বিজেপি–‌‌তে যোগ দিয়েছিলেন। বিজেপি তাঁকে দলের মুখপাত্র করেছিল। শুক্রবার বিজেপি ছেড়ে বেরিয়ে গেছেন তিনি। 
শুধু বেরিয়েই যাননি, রেশমার অভিযোগ, ‌বিজেপি এখন শুধুই ‘‌মার্কেটিং কোম্পানি’‌। গুজরাট বিজেপি–‌‌র সভাপতি জিতু বাঘানির কাছে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন তিনি। চিঠিতে লিখেছেন, ‘‌বিজেপি এখন মার্কেটিং কোম্পানি। জনগণকে বোকা বানাতে সরকারের ভুয়ো নীতি ও ভুয়ো প্রকল্পের মার্কেটিং করতে শেখানো হচ্ছে আমাদের। কিন্তু, আমরা মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। প্রকৃতই দেশের জন্য কাজ করতে চাই।’‌ হার্দিক প্যাটেলের পাটিদার অনামত আন্দোলন সমিতির অন্যতম মুখ ছিলেন তিনি। হার্দিক কংগ্রেসের হয়ে কাজ করছেন বলে অভিযোগ করে ২০১৭–র বিধানসভা ভোটের আগে তিনি বিজেপি–‌তে যোগ দেন। এবার তিনি পোরবন্দরে প্রার্থী হবেন বলে জানিয়েছেন। তবে ‌তাঁর দাবি, তিনি কংগ্রেস বা অন্য কোনও দলে যোগ দেবেন না। শেষ পর্যন্ত কংগ্রেস তাঁকে সমর্থন করে কিনা সেটাই এখন দেখার।
এদিনই হরিয়ানার প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ অরবিন্দ শর্মা বিজেপি–‌‌তে যোগ দিয়েছেন। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টর তাঁকে দলে স্বাগত জানিয়েছেন। ১৯৯৬ সালে সোনেপত কেন্দ্র থেকে নির্দল প্রার্থী হিসেবে লোকসভায় নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। ’‌৯৯ সালে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন। এখন মোদির উন্নয়নের জোয়ারে ভেসে যেতে চাইছেন তিনি। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top