আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিগত ১৫ বছরে ফৌজদারি মামলা চলছে এমন সাংসদদের সংখ্যা প্রায় দ্বি‌গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের গুরুত্বপূর্ণ রায়ের পরই প্রকাশ্যে এল রিপোর্ট। সম্প্রতি শীর্ষ আদালত রায় দিয়েছে, যেসব সাংসদদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা চলছে, তাঁদের সম্পর্কে সমস্ত তথ্য প্রকাশ্যে আনতে হবে সংশ্লিষ্ট দলকে। এছাড়া কেন তাঁদের ভোটের টিকিট দেওয়া হচ্ছে, সেই কারণও দর্শাতে হবে ওই রাজনৈতিক দলকে। সেই সম্পর্কিত সমস্ত তথ্যই থাকবে সংশ্লিষ্ট রাজনৈতিক দলের নিজস্ব ওয়েবসাইটে। তাঁদেরকে ভোটের টিকিট দেওয়ার ৪৮ ঘন্টার মধ্যেই সেই তথ্য ওয়েবসাইটে এবং ৭২ ঘন্টার মধ্যে নির্বাচন কমিশনকে জানাতে হবে। সুপ্রিম কোর্টের এই গুরুত্বপূর্ণ রায়ের পরেই একটি রিপোর্ট প্রকাশ্যে এসেছে। তা থেকে জানা গিয়েছে, বিগত ১৫ বছরে ফৌজদারি মামলা চলছে এমন সাংসদদের সংখ্যা দু’‌গুণ বেড়েছে। ২০১৪ সালের লোকসভায় আপের টিকিটে লড়েছিলেন উদয়কুমার এসপি। নির্বাচনী হলফনামায় তিনি জানিয়েছিলেন, তাঁর বিরুদ্ধে ৩৮২টি ফৌজদারি মামলা চলছে। অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্র্যাটিক রিফোর্মসের রিপোর্ট বলছে, ফৌজদারি মামলা চলছে এমন সাংসদের সংখ্যা বিগত ১৫ বছরে প্রায় দ্বিগুণ বেড়ে গিয়েছে। এদের মধ্যে অনেক সাংসদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রাজনৈতিক কারণেই দায়ের করা হয়েছে। সবচেয়ে বেশি ‘দাগী’ সাংসদ নিয়ে প্রথম স্থানে রয়েছে জেডিইউ, তাঁদের ১৬ জনের মধ্যে ১৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা। এরপরেই রয়েছে শিবসেনা (১১/১৮)। কংগ্রেসের ৫২ জনের মধ্যে ৩০ জনের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে। দেশের সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক দল বিজেপির ৩০২ সাংসদের মধ্যে ১১৭ জনের বিরুদ্ধে এই মামলা চলছে।

জনপ্রিয়

Back To Top