আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বেসামাল দেশ। সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। এই পরিস্থিতিতে করোনা পরীক্ষা বাড়াতে সমস্ত সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট এর অনুমতি দিল কেন্দ্র। আইসিএমআর এর ডিজি বলরাম ভার্গব এদিন বলেন, ‘‌যা পরিস্থিতি, তাতে দ্রুত সংক্রমণ চিহ্নিতকরণের জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’‌ এমনকি কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানিয়েছে, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট সেন্টার এবার স্কুল, কলেজ, কমিউনিটি সেন্টারে খোলা হবে। বিভিন্ন অফিসেও খোলা হতে পারে এই র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট সেন্টার। শুধু তাই নয়, আরটি–পিসিআর টেস্ট ও র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের ফলাফল আইসিএমআরের ওয়েবসাইটে অবশ্যই নথিভুক্ত করতে হবে। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সামাজিক দূরত্ববিধি মেনেই এই পরীক্ষা করতে হবে। 
কেন্দ্রের তরফে আরও বলা হয়েছে, প্রতিদিন অন্তত ১৬ লক্ষ আরটি–পিসিআর টেস্ট করা যেতে পারে। আর র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট হতে পারে অন্তত ১৭ লক্ষ। তবে কেন্দ্র জানিয়েছে, দুটো মিলিয়ে প্রতিদিন অন্তত ১৬–২০ লক্ষ পরীক্ষা হওয়া জরুরি। 
বলরাম ভার্গব আরও বলেছেন, ৩০ এপ্রিল অবধি দেশে করোনার পজিটিভিটি রেট ছিল ২১ শতাংশ। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে বলা হয়েছে, গোয়া, পুদুচেরি, পশ্চিমবঙ্গ, হরিয়ানা, কর্নাটকে পজিটিভিটি রেট এখন বেশি। অন্যদিকে মহারাষ্ট্র, দিল্লি, ছত্তিশগড় সহ ১৮ রাজ্যে পজিটিভিটি রেট কমছে। 
টিকাকরণে জোর দেওয়ার পাশাপাশি এবার করোনা পরীক্ষাতেও জোর দিতে চাইছে কেন্দ্র। 


 

জনপ্রিয়

Back To Top