আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ প্লাস্টিক মুক্ত ভারত গড়ে তুলতে হবে। এটা প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প। তাই ভারতীয় রেলের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আগামী ২ অক্টোবর থেকে রেলের কোথাও সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিক ব্যবহার করা যাবে না। গান্ধী জয়ন্তীর দিন থেকে আইআরসিটিসি–কে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে সব যাত্রীদের থেকে প্যান্ট্রি কর্মীরা যাতে খালি খাবার জলের বোতল সংগ্রহ করেন।
কিন্তু তা করতে কীভাবে সচেতন করা হবে?‌ রেল সূত্রে খবর, প্লাস্টিক বোতল ব্যবহারের পরে যদি বিভিন্ন রেল স্টেশনে লাগানো ‘‌বটল ক্রাশিং মেশিনে’‌ সেই বোতলগুলি যাত্রীরা ফেলেন, তাহলে মোবাইল ফোনে যোগ করে দেওয়া হবে টাকা। অর্থাৎ মোবাইলে রিচার্জের লোভে যদি যাত্রীরা প্লাস্টিক ত্যাগ করেন। উদ্যোগ ভাল তবে নজরদারি কতটা হবে?‌ এই নজরদারির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে আইআরসিটিসি–কে।
উল্লেখ্য, স্বাধীনতা দিবসে জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশবাসীর কাছে আবেদন করেছিলেন যাতে তাঁরা সিঙ্গল ইউজ প্লাস্টিকের ব্যবহার বন্ধ করেন এবং প্লাস্টিকের জলের বোতলের পরিবর্তে অন্য বোতল ব্যবহার করেন। কিন্তু তাতে কাজ হয়নি। তাই বাধ্য হয়েই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামবিলাস পাসওয়ান প্যাকেটজাত জল এবং জলের বোতলের সংস্থার সঙ্গে বৈঠক করেছেন। বিকল্প পথ এখনও তাঁরা জানাতে পারেননি।
তাই রেলকেই বেছে নেওয়া হয়েছে প্রাথমিক পর্যায়ে। কীভাবে মোবাইল রিচার্জ করা হবে?‌ এই বিষয়ে রেলওয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান ভি কে যাদব জানান, প্রাথমিক পর্যায়ে দেশের বিভিন্ন স্টেশনে মোট ৪০০টি বটল ক্রাশিং মেশিন লাগানো হবে। যেসব যাত্রী এই মেশিন ব্যবহার করতে চাইবেন তাঁকে আগে ফোন নম্বর দিতে হবে। বোতল এই মেশিনের ভেতর দিলেই তাঁর ফোন নম্বর রিচার্জ হয়ে যাবে। এখন দেশের ১২৮টি স্টেশনে ১৬০টি বটল ক্রাশিং মেশিন রয়েছে।

জনপ্রিয়

Back To Top