আজকাল ওয়েবডেস্ক: এই দৃশ্য আমরা অহরহ দেখে থাকি। প্রবল যানজট, রাস্তায় ঠাসাঠাসি গাড়ি, নড়ার জায়গা নেই। ফাঁক গলে যাওয়ারও উপায় নেই। কিন্তু স্কুটার, মোটর সাইকেল দিব্যি রাস্তা করে নিল তার মধ্যেই। সটান উঠে পড়ল ফুটপাথে। পথচারীকে প্রায় ধাক্কা দিয়ে, মানুষের চূড়ান্ত বিরক্তির উদ্রেক করে তারা পথ করে নিল দিব্যি। অন্য গাড়ির আরোহীদের সঙ্গে একটু দাঁড়িয়ে থাকার ধৈর্য নেই যে!
এই ছবি প্রায় সব শহরের ক্ষেত্রেই সত্যি। আমরা বিরক্ত হই তো বটে, কিন্তু ক’‌জন রুখে দাঁড়ায়? ক’‌জন প্রতিবাদ করে? বা নিদেন পক্ষে ওই সব বেপরোয়া যুবকদের দু’‌কথা শুনিয়ে বাগে আনার চেষ্টা করে?
এখানেই ব্যতিক্রম পুনের এক মধ্যবয়স্ক আন্টি। টুইটারে ভাইরাল হয়েছে একটি ভিডিও, যাতে দেখা যাচ্ছে, ফুটপাথের ওপরে সটান দাঁড়িয়ে আছেন তিনি। আটকাচ্ছেন সেই বাইক গুলোকে যারা পথচারীকে প্রায় ধাক্কা মেরে যাওয়ার চেষ্টা করছে। তাদের কিছু বলছেন তিনি, যেটা ভিডিওতে শোনা যাচ্ছে না। কিন্তু তাঁর বলার ভঙ্গি দেখে এটা মোটামুটি স্পষ্ট, ট্র্যাফিক আইন ভাঙার জন্য তিনি ওদের জোর বকুনি দিচ্ছেন। তাঁকে রুখে দাঁড়াতে দেখে তাঁর সঙ্গে গলা মিলিয়েছেন আরও জনা দুয়েক বয়স্ক ব্যক্তি। যাঁরা সকলেই বাইকওয়ালাদের বলছেন, ভাই যেতে হলে রাস্তা দিয়েই যেতে হবে। ফুটপাথ দিয়ে যেতে দেওয়া হবে না। নেটিজেনরা ধন্য ধন্য করছেন এই উদ্যোগের। অনেকেই আবার একই সঙ্গে সমালোচনায় মুখর হয়েছেন ট্র্যাফিক পুলিশ সম্পর্কে। তাঁদের বক্তব্য পুলিশ যদি সজাগ ও কঠোর হয়, তবে এমন সমস্যা মোটেই হত না।

জনপ্রিয়

Back To Top