আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের উত্তপ্ত উপত্যকা। শুক্রবার বিকেল ৫.‌৪৫ মিনিটে ফের সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করে জম্মু–কাশ্মীরের পুঞ্চ জেলার কৃষ্ণঘাঁটি সেক্টরে গোলাগুলি ছুড়ল পাকিস্তানি সেনাবাহিনী। প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে উঠে তৎক্ষণাৎ জবাব দিয়েছে সেনাবাহিনীও। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত দুপক্ষের গুলিবর্ষণ জারি রয়েছে। 
অন্যদিকে, হান্দোয়ারা থানার পুলিশ বৃহস্পতি এবং শুক্রবার দুবারে পৃথক অভিযান চালিয়ে মোট সাতজন লস্কর জঙ্গি এবং তাদের সহায়ককে গ্রেপ্তার করেছে। পুলিশ শুক্রবার বিকেলে বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, এদিন সকালে হান্দোয়ারা থানা এলাকার গুন্ড চোগাল গ্রামে অন্য নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে যৌথ অভিযান চালায় তারা। সেখান থেকে পারভেজ আহমেদ চোপান, মুদাসির আহমেদ পণ্ডিত, মহম্মদ রফি শেখ এবং বুরহান মুস্তাক ওয়ানি নামে চার জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করে বাহিনী। তাদের কাছ থেকে তিনটে একে–৪৭ রাইফেল, আটটা একে–৪৭ ম্যাগাজিন, ৩৩২ রাউন্ড একে কার্তুজ, ১২টা হ্যান্ড গ্রেনেড, তিনটে পিস্তল, ছয়টা পিস্তলের ম্যাগাজিন, ২৪ রাউন্ড পিস্তলের কার্তুজ এবং লস্করের লেটারপ্যাড উদ্ধার হয়েছে। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে পুলিশ স্থানীয় তিন বাসিন্দা আজাদ আহমেদ ভাট ওরফে শালপোরা লাঙ্গেট, আলতাফ বাবা ওরফে রফিয়াবাদ বাবাগুন্ড এবং ইরশাদ আহমেদ ওরফে সেলিকুট উরির বাড়িতে অভিযান চালিয়েছিল। সেখান থেকেও প্রচুর অস্ত্রশস্ত্র, গোলাবারুদ, লেটারপ্যাড এবং লস্করের পোশাক উদ্ধার হয়। পুলিশ বিবৃতিতে দাবি করেছে, গ্রেপ্তারির পর জেরায় ধৃত তিনজনই স্বীকার করেছে তারা লস্করের হয়ে কাজ করত এবং স্থানীয় যুবকদের জঙ্গি দলে নাম লেখাতে উস্কানি দিত। এমনকি সম্প্রতি স্থানীয় যে কয়েকজন যুবক লস্করে নাম লিখিয়েছে তাদের অস্ত্র সরবরাহ করত তারা। ওই নতুন জঙ্গিরা হান্দোয়ারা থানা এলাকাতেই সক্রিয়। তাদের কাছ থেকে খবর পেয়েই শুক্রবার অভিযান চালায় পুলিশ।
ছবি: এএনআই‌      ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top