আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ চারটি শিশুকে কুঠার দিয়ে কুপিয়ে ভয়ঙ্করভাবে খুন। পুলিশের সন্দেহ, ধর্ষণও করা হয়েছিল ওই আদিবাসী শিশুদের। আনুষঙ্গিক প্রমাণ সেকথাও বলছে। ১৫ অক্টোবরের ঘটনা। এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করেনি পুলিশ। এই নিয়ে মহারাষ্ট্রের জলগাঁওয়ে তীব্র বিক্ষোভ। 
গত বৃহস্পতিবারের ঘটনা। মৃত মেয়ে দু’‌টির বয়স ১৩ বছর এবং ছ’‌ বছর। ছেলে দু’‌টির বয়স আট এবং এক বছর। তাদের এক আত্মীয় মারা গেছিলেন। চারটি শিশুকে এক পরিচিতের কাছে রেখে তাদের বাবা–মা এবং বড় দাদা ওই আত্মীয়ের বাড়িতে যান। 
জলগাঁও থেকে ৬৬ কিমি দূরে রাভের তালুকের একটি বাড়িতে ওই শিশুর চারটির রক্তাক্ত দেহ পড়ে ছিল। ১৬ অক্টোবর রাতেই তাদের খুন করা হয়েছে। পরের দিন সকালে বাড়ির মালিকে সেখানে পৌঁছে এই দৃশ্য দেখেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। 
মৃত শিশুদের দাদা জানিয়েছে, তারই এক বন্ধুর জিম্মায় ভাই–বোনদের রেখে গেছিল। ফিরে এসে এই অবস্থা দেখে। অভিযোগ, পুলিশ এখনও কাউকে গ্রেপ্তার করেনি। শনিবার ঘটনাস্থলে গেছিলেন মহারাষ্ট্রের গৃহমন্ত্রী অনিল দেশমুখ। জানিয়েছেন, পুলিশ ঠিক পথেই এগোচ্ছে। শিগগিরই অভিযুক্তদের ধরা হবে। 

জনপ্রিয়

Back To Top