আজকাল ওয়েবডেস্ক: একদিকে যখন তাঁর দল হাথরস গণধর্ষণকাণ্ডের বিরুদ্ধে লড়ছে। আরেকদিকে, তখন তারাই কী করে উপনির্বাচনের জন্য ধর্ষণে অভিযুক্তে ভোটের টিকিট দিল। এই প্রশ্ন তুলে প্রতিবাদ করায় দলের পুরুষ কর্মীদের হাতের প্রহৃত হলেন উত্তর প্রদেশ কংগ্রেসের মহিলাকর্মী তারা যাদব। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর প্রদেশের দেওরিয়ায়। দেওরিয়ার টাউনহলের উপনির্বাচনের বৈঠকে মুকুন্দ ভাস্কর নামে ধর্ষণে অভিযুক্ত এক ব্যক্তিকে বিহার ভোটের প্রার্থী করা নিয়েই গোলমালের সূত্রপাত। বিজেপি বিধায়ক জন্মেজয় সিং–এর মৃত্যুতে ওই আসনটি খালি হয়েছে।
তারা যাদবের অভিযোগ, ‘‌আমি যখন ধর্ষক মুকুন্দ ভাস্করকে আগমী ভোটের জন্য টিকিট দেওয়ার প্রতিবাদ করলাম আমায় দলীয় কর্মীরাই মারধর করল। এখন আমি প্রিয়াঙ্কা গান্ধীজির দিকে তাকিয়ে আছি ন্যায়বিচারের জন্য।’‌ ক্ষোভপ্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘‌একদিকে যখন হাথরস মামলায় মৃতার জন্য সুবিচার চেয়ে আমাদের দল লড়ছে, আরেকদিকে তখন দলের টিকিট দেওয়া হচ্ছে একজন ধর্ষককে। এটা ভুল সিদ্ধান্ত। এতে আমাদের দলের ছবি খারাপ হবে।’‌
পুরো ঘটনা সেলফোনে কেউ তুলে আপলোড করেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। মুহূর্তে তা ভাইরাল হয়। দলীয় কর্মীদের হাত থেকে তারাকে রক্ষা করেন অন্য কয়েকজন দলীয় কর্মীই। পরে পুলিশে জেলা কংগ্রেসের সভাপতি ধর্মেন্দ্র সিং, সহ সভাপতি অজয় সিং এবং আরও দুজনের নামে অভিযোগ দায়ের করেছেন। কংগ্রেসের একাংশের পাল্টা অভিযোগ, অন্য দুই মহিলা কর্মীর সঙ্গে  বৈঠকে ঢুকেই দলের সর্বভারতীয় সচিব শচীন নায়েককে লক্ষ্য করে ফুলের তোড়া ছুড়ে মারেন তারা যাদব। তারপরই গোলমাল শুরু হয়।
ছবি:‌ এএনআই ‌

জনপ্রিয়

Back To Top