Pak Terrorist: হামলার জন্য দিল্লির ১০টি জায়গা রেকি করেছিল, জেরায় জানাল পাক জঙ্গি

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দিল্লির অন্তত ১০টি জায়গার হালহকিকৎ খোঁজ নিয়েছিল সে। তার পর সেই খুটিনাটি তথ্য পাঠিয়ে দিয়েছিল নিজের হ্যান্ডলারকে। যে কিনা থাকে পাকিস্তানে। জেরায় পুলিশকে এমন তথ্যই দিল পাক জঙ্গি মহম্মদ আশরফ। গতকালই পূর্ব দিল্লি থেকে ধরা পড়েছে সে। আরও জানিয়েছে, ২০১১ সালে বিস্ফোরণের আগে দিল্লি হাইকোর্টেও রেকি করে এসেছিল সে।
জেরায় তদন্তকারীরা আরও জানতে পেরেছে, জম্মু ও কাশ্মীরে সেনাবাহিনীর পদক্ষেপের ওপরও নজর রাখত আশরফ। পুলিশের জালে যাতে না ধরা পড়ে, তাই নিয়মিত মোবাইলের সিম পাল্টে ফেলত। 
গত কালই পূর্ব দিল্লি থেকে গ্রেপ্তার হয় আশরফ। পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের বাসিন্দা সে। জানা গিয়েছে আলি আহমেদ নুরি নামে ভুয়ো পরিচয় পত্র নিয়ে ভারতে বসবাস করছিল সে। তার থেকে একটি একে–৪৭, একটি অতিরিক্ত ম্যাগাজিন, ৬০ রাউন্ড গুলি, একটি হ্যান্ড গ্রেনেড, ৫০ রাউন্ড গুলি সহ দু’‌টি আধুনিক পিস্তল। 
দিল্লির পুলিশ কমিশনার রাকেশ আস্থানা জানিয়েছেন, এই উৎসবের মরসুমে বড়সড় হামলার ছক কষছিল সে। শুধু দিল্লিতে নাকি দেশের অন্য শহরেও নাশকতা ছড়ানোর পরিকল্পনা ছিল আশরফের, তা এখনও জানা যায়নি। তবে জেরায় জানা গিয়েছে, দিল্লি হাইকোর্টের পাশাপাশি ইন্ডিয়া গেট, লাল কেল্লা, দিল্লি পুলিশের সদর দপ্তর, কাশ্মীরি গেটের ইন্টার স্টেট বাস টার্মিনাসেও ঘুরে ঘুরে তথ্য সংগ্রহ করেছিল সে। তার পর সেসব পাঠিয়েছিল পাকিস্তানে বসে থাকা নিজের হ্যান্ডলারকে। 
সেই হ্যান্ডলার আইএসআই–এর সদস্য। কিন্তু এর থেকে বেশি কিছু সে জানে না। ওই হ্যান্ডলারই বলে দিত, কবে কোথায় তার জন্য অস্ত্র পাঠানো হবে। সে জানিয়েছে, দিল্লি পুলিশের সদর দপ্তরের সামনে বেশিক্ষণ ঘোরাঘুরি করতে পারেনি। কারণ পুলিশ সেখান থেকে তাকে তাড়িয়ে দিয়েছিল। নিজের পরিবারের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখত আশরফ।