আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ জাতীয় বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিকস্তরের করা হবে। সম্প্রসারণের প্রয়োজন। এই কারণে দেরাদুনের জলি গ্রান্ট বিমানবন্দর সংলগ্ন এলাকার ১০ হাজার গাছ কাটা হচ্ছে। প্রতিবাদে সামিল স্থানীয় মানুষ।
উত্তরাখণ্ড সীমান্ত সংলগ্ন রাজ্য। সীমান্তের ওপারে রয়েছে চীন। কূটনৈতিক এবং সামরিক দিক থেকে এই রাজ্যের অবস্থান গুরুত্বপূর্ণ। রাজ্যের রাজধানী দেরাদুন থেকে এলএসি–র দূরত্ব খুব বেশি নয়। তাই এখানকার বিমানবন্দরকে এবার আন্তর্জাতিক স্তরে উন্নীত করতে চায় সরকার। যাতে সেখানে যুদ্ধবিমান নামতে পারে। বিদেশ থেকে বিমান ওঠানামা করতে পারে।
আর এই কারণে বর্তমান বিমানবন্দর সংলগ্ন থানো অরণ্যভূমির ২৪৩ একর জমি ভারতীয় বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে (‌এএইআই)‌ দিচ্ছে রাজ্য সরকার। সেখানে ১০ হাজার গাছ কেটে তৈরি  হবে বিমানবন্দর। রাজাজি ন্যাশনাল পার্কের একাংশও অধিগ্রহণ করা হচ্ছে বিমানবন্দরের জন্য। এই পার্কে অনেক বিলুপ্তপ্রায় প্রাণীর বাস। নির্মাণ শুরু হলে এই এলাকার বাস্তুতন্ত্র নষ্ট হবে।
পরিবেশবিদদের দাবি, উত্তরাখণ্ডের গৌচার এবং পিথোরাগড়ে বায়ুসেনা ঘাঁটি রয়েছে। সেখান থেকে এলএসি–র দূরত্ব অনেক কম। এই দুই বিমানবন্দরের একটিকে আন্তর্জাতিক করা হোক। সরকার এবং বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, অন্য জায়গায় গাছ লাগানো হবে। তবু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর নির্মাণ নিয়ে তারা অটল। 

জনপ্রিয়

Back To Top