আজকাল ওয়েবডেস্ক: ‌ছেলে দশম শ্রেণির পরীক্ষায় ফেল করেছে, তা সত্ত্বেও একফোঁটা রাগ নয়। ছেলের ফেল করার আনন্দে বাজি ফাটালেন বাবা। শুধু তাই নয়, প্রতিবেশীদের আমন্ত্রণ করে তাঁদের মিষ্টিমুখও করিয়েছেন মহারাষ্ট্রের সাগরের বাসিন্দা সুরেন্দ্র কুমার ব্যাস। হ্যাঁ, শুনতে অবাক লাগলেও এমনটাই হয়েছে। পেশায় সিভিল ইঞ্জিনিয়ার ওই ব্যক্তির মতে, পরীক্ষা ছাড়াও জীবনে অনেক কিছু রয়েছে। তিনি নিজের ছেলেকে সেটাই বোঝাতে চেয়েছেন। তাঁর ছেলে যে চেষ্টা করেছে, এটাই সুরেন্দ্রর কাছে অনেক বড় ব্যাপার। আর তাই ছেলে ফেল করলেও পার্টি করলেন বাবা। বর্তমান সময়ে দেখা যায়, পরীক্ষায় পাশ করতে না পারলে মানসিক অবসাদে ভুগতে থাকে ছাত্র–ছাত্রীরা। এমনকি অনেকে আত্মহত্যার পথও বেছে নেয়। আর এই পরিবেশেই সুরেন্দ্র এবং তাঁর ছেলের এই ঘটনা অনেকটাই আলাদা। ছেলেকে যেভাবে অনুপ্রাণিত করেছেন সুরেন্দ্র অনেকেই সেটার প্রশংসাও করেছেন। এক সাক্ষাৎকারে সুরেন্দ্র জানিয়েছেন, ‘‌এভাবেই আমি আমার ছেলেকে অনুপ্রাণিত করতে চাই। পরীক্ষায় ফেল করার পর অনেকেই মানসিক অবসাদে ভোগে, কেউ কেউ আত্মহত্যার মতো পথও বেছে নেয়। আমি তাদের বোঝাতে চাই বোর্ডের পরীক্ষাই শেষ নয়, এছাড়াও আরও অনেক কিছু আছে জীবনে।’ তিনি আরও জানান, তাঁর ছেলে আগামী বছর আরও ভালভাবে পরীক্ষা দেবে। সুরেন্দ্র অনুষ্ঠানের জন্য বাজি কিনে আনেন। প্রতিবেশী, বন্ধুদের নিমন্ত্রণ জানিয়ে মিষ্টিমুখও করান। বাবা এভাবে তার পাশে দাঁড়িয়েছে। তাই আগামী বছর ভাল ফল করার ব্যাপারে আশাবাদী আশু নামে ওই ছাত্রও। আশুর কথায়, ‘আমি আগামী বছর আরও ভালভাবে পড়াশোনা করব এবং ভাল নম্বর নিয়ে পাশ করার চেষ্টা করব।‌’

জনপ্রিয়

Back To Top