আজকাল ওয়েবডেস্ক: দেশজুড়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের হার। আর তার জেরে বাতিল হচ্ছে একাধিক পরীক্ষা। তবে এদিন সিবিএসই বোর্ডের তরফে জানিয়ে দেওয়া হল দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা বাতিল হবে কিনা সেবিষয়ে এখনও কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। সিবিএসই বোর্ডের তরফে বলা হয়েছে, একাধিক প্রেস মিডিয়ায় বলা হয়েছে যে সিবিএসই দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা বাতিল হয়েছে। এ খবর সত্য নয়। পরীক্ষা বাতিলের বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। বোর্ডের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে সিবিএসই বোর্ডের সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের তা জানিয়ে দেওয়া হবে। পরীক্ষা বাতিল হচ্ছে কিনা বা পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হবে কিনা এ বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলেই জানিয়েছে কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে পরীক্ষা বাতিল সংক্রান্ত খবর প্রকাশ হওয়ায় বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়ে ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে। চিন্তিত হয়ে পড়েন অভিভাবকরাও। পরীক্ষা বাতিল হবে কিনা কিংবা পিছিয়ে দেওয়া হবে কিনা এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের তরফে আগামী ২৫ মে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। উল্লেখ্য, এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি জানিয়ে দিয়েছেন, চলতি বছরের জুন মাসে মাধ্যমিক পরীক্ষা আপাতত নির্দিষ্ট তারিখে হবে না। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ জনিত কারণেই আপাতত পরীক্ষা নির্দিষ্ট দিনে হবে না। স্থগিত রাখা হচ্ছে। তবে মাধ্যমিক পরীক্ষা সম্পূর্ণ বাতিল হবে কিনা কিংবা পরে নেওয়া হবে কিনা সে বিষয়ে রাজ্য সরকার এখনও কোনও কিছু মধ্য শিক্ষা পর্ষদকে জানায়নি। প্রসঙ্গত, মারণ ভাইরাস করোনা পরিস্থিতি অতিমারীর আকার ধারণ করায় দেশজুড়ে সিবিএসই বোর্ডের পরীক্ষা স্থগিতের দাবি জানিয়েছিলেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী, রাহুল গান্ধী থেকে শুরু করে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। কোভিড অতিমারীর পরিস্থিতি থেকে ছাত্রছাত্রীদের জীবনের সুরক্ষার কথা ভেবে সিবিএসই পরীক্ষা বাতিলের অনুরোধ করেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংও। দেশজুড়ে কোভিড পরিস্থিতির জেরে পরীক্ষা হবে কিনা সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল সহ মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেই বৈঠকেই স্থির হয় দশম শ্রেণির পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া হবে।

জনপ্রিয়

Back To Top