আজকালের প্রতিবেদন, দিল্লি: করোনা–‌‌যোদ্ধাদের সময় মতো বেতন দিচ্ছে না দেশের ৪টি রাজ্য। যার মধ্যে দুটি রাজ্য আবার বিজেপি–‌‌শাসিত। শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টে এই তথ্য পেশ করল কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রকেই উপযুক্ত পদক্ষেপের নির্দেশ দিল আদালত।
করোনা আবহে করোনা–‌‌যোদ্ধাদের এই হাল শুনে হতবাক শীর্ষ আদালত। বিচারপতিদের পর্যবেক্ষণ, ‘‌যুদ্ধে সেনাকে অখুশি রাখা চলে না।’‌
চিকিৎসক, নার্স–‌‌সহ অন্য স্বাস্থ্যকর্মীরা যাতে নির্দিষ্ট সময়ে বকেয়া–‌‌সহ নিয়মিত বেতন পান, তা নিশ্চিত করতে এদিন কেন্দ্রীয় সরকারকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করার নির্দেশ দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত। গত জুনে চিকিৎসক ও নার্সদের বেতন না দেওয়াকে ‘‌অপরাধ’‌ বলে মন্তব্য করেছিল আদালত। বকেয়া বেতন ছাড়াও করোনা অতিমারীর আবহে চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য যাবতীয় বন্দোবস্ত না থাকার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে শীর্ষ আদালত। বিচারপতি অশোক ভূষণ, বিচারপতি আর সুভাষ রেড্ডি এবং বিচারপতি এম আর শাহর বেঞ্চের নির্দেশ, ‘‌রাজ্যগুলো যদি কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশ না মানে, তাহলে সরকারও অসহায় নয়। কেন্দ্রীয় সরকারকেই সেই নির্দেশ কার্যকর করতে হবে। কারণ, বিপর্যয় মোকাবিলা আইন অনুযায়ী কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে ক্ষমতা রয়েছে। সরকারকে পদক্ষেপ করতে হবে।’‌
আশ্চর্যের বিষয় হল, যে ৪টি রাজ্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তার মধ্যে দুটি রাজ্য বিজেপি–শাসিত। বাকি দুটিতে ক্ষমতায় রয়েছে কংগ্রেস বা তাদের শরিক দল। বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর অনেকেই বলছেন, একদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি থালা–‌‌বাসন বাজিয়ে, আলো জ্বালিয়ে, করতালি দিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীদের মনোবল বাড়ানোর কথা বলছেন। নিজে তা করছেনও। অন্যদিকে, তাঁর দল বিজেপি নিজেদের দুই রাজ্যে স্বাস্থ্যকর্মীদের বাড়তি সুবিধা দেওয়া তো দূরের কথা, সময় মতো বেতনই দিচ্ছে না!‌ আদালতের রায়ের পর রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা প্রশ্ন তুলেছেন, মোদি সরকার কি করোনা–‌‌যোদ্ধাদের নিয়ে আদৌ চিন্তিত?‌ কারণ, এর আগে দিল্লির বুকে চিকিৎসক, নার্সদের নিজেদের বাড়িতে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। সেই ঘটনায় পুলিশি সাহায্য মেলেনি। কাউকে শাস্তি দেওয়া হয়নি। এখন চিকিৎসকদের বেতন বন্ধ হলে পরিস্থিতি ভয়ানক হতে পারে।
চিকিৎসকদের পক্ষে দায়ের করা এক মামলায় শুক্রবার কেন্দ্রীয় সরকারের সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা সুপ্রিম কোর্টে জানিয়েছেন, আদালতের নির্দেশ এবং কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে বার বার বলা সত্ত্বেও ৪টি রাজ্য নির্দিষ্ট সময়ে করোনা–‌‌যোদ্ধা চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের বেতন দেয়নি। এই রাজ্যগুলি হল, ত্রিপুরা, কর্ণাটক, পাঞ্জাব ও মহারাষ্ট্র। সরকারের এই বক্তব্যে উষ্মা প্রকাশ করেছেন বিচারপতিরা। সেইসঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, এই কঠিন সময়ে ‘‌করোনা–‌‌যোদ্ধা’‌ চিকিৎসক, নার্সদের সময় মতো বেতন এবং তাঁদের জন্য উপযুক্ত বন্দোবস্ত নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করুক কেন্দ্রীয় সরকার। এর আগে গত এপ্রিলে দেশের চিকিৎসক ও নার্সদের ‘‌সামনের সারির যোদ্ধা’‌ আখ্যা দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের একাধিক নির্দেশিকায় স্বাস্থ্যকর্মীদের বেতন মিটিয়ে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top