আবু হায়াত বিশ্বাস, দিল্লি: দিল্লিতে বড় জয়ের পর এবার উত্তরপ্রদেশে নজর আম আদমি পার্টির। ২০২২ বিধানসভা নির্বাচনের আগে দেশের সর্ববৃহৎ রাজ্যে কোমর বেঁধে আসরে নামছে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের দল। আপের রাজ্যসভার সাংসদ তথা উত্তরপ্রদেশের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা সঞ্জয় সিং বলেছেন, দলের সংগঠনকে শক্তিশালী করতে আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৩ মার্চ পর্যন্ত চলবে সদস্য সংগ্রহের অভিযান। চলবে সদস্য সংগ্রহের কাজও। দিল্লিতে কেজরিওয়ালের দলের ৬২ জন বিধায়কের মধ্যে এমন ১২ জন আছেন, যাঁরা মূল নিবাসী উত্তরপ্রদেশের। ওই বিধায়কদের উত্তরপ্রদেশে নামানো হবে।   
দিল্লি নির্বাচনের ফল প্রকাশের পরই আপ মিসড কলের মাধ্যমে সদস্য সংগ্রহ শুরু করেছে‌। আপ নেতৃত্ব দাবি করেছেন, ফলপ্রকাশের পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ১১ লক্ষ্য সদস্য আপ–এ যোগ দিয়েছেন। সদস্য সংগ্রহে প্রথম ২৪ ঘণ্টায় সাফল্য পেয়েই ভিন্ন ভিন্ন রাজ্যে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে উদ্যোগী হয়েছে দল। বিশেষ করে দিল্লির লাগোয়া রাজ্যগুলিতে বেশি গুরুত্ব দিতে চাইছে দল। ২০১৯–‌এ হরিয়ানা বিধানসভা নির্বাচন হয়ে গেছে। সেখানে লড়লেও, কোনও আসন পায়নি আপ। লড়াইয়ে খুব একটা গুরুত্বও দিতে পারেনি। এরপর আছে ২০২২–এর পাঞ্জাব, উত্তরপ্রদেশের বিধানসভা নির্বাচন। এই সুযোগ ছাড়তে চায় না আপ। ২০১৪ সালে পাঞ্জাবে চারটি লোকসভা আসন জিতেছিল আপ। ২০১৭ বিধানসভা নির্বাচনে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছিল ১১৭–র মধ্যে ২০ আসন জিতে। পাঞ্জাবে সংগঠন তৈরি আছে, এবার তা বাড়াতে হবে। অন্যদিকে, দিল্লিতে বিরাট জয়ের পর কেজরিওয়ালদের লক্ষ্য, উত্তরপ্রদেশে দলের বিস্তার। সেখানে কংগ্রেস, সপা বা বসপা কেউই সুবিধাজনক জায়গায় না–থাকায়, 
তাঁদের সামনে অনেকটা ফাঁকা জমি রয়েছে বলে মনে করছেন আপ নেতারা। আপ সূত্রের খবর, ২৩ ফেব্রুয়ারি উত্তরপ্রদেশের দলের নেতা-‌কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করবেন সঞ্জয় সিং। ওই দিন থেকেই উত্তরপ্রদেশে সদস্য সংগ্রহে অভিযানে নামছে আপ। 
সঞ্জয় সিং জানিয়েছেন, দলের প্রচার ও প্রসারের জন্য রাজ্যের প্রত্যেক বিধানসভা এলাকায় অন্তত ৫ হাজার ব্যানার, 
পোস্টার লাগানোর পরিকল্পনা রয়েছে দলের। এছাড়াও সদস্য সংগ্রহে বিভিন্ন জনবহুল এলাকায় ক্যাম্প করা হবে। ‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top