আবু হায়াত বিশ্বাস,দিল্লি:  মায়ার রোষে মোদি!‌ দু’‌দিন আগেই ‌নরেন্দ্র মোদি সরকারকে ‘‌ডুবন্ত জাহাজ’‌ বলে কটাক্ষ করেছিলেন বহুজন সমাজ পার্টির শীর্ষনেত্রী মায়াবতী। বুধবার ফের প্রধানমন্ত্রী মোদিকে আক্রমণ করলেন তিনি। সপ্তম দফা নির্বাচনের মুখে গুজরাট দাঙ্গার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে তিনি বলেছেন, ওই ঘটনা মুখ্যমন্ত্রী মোদির শাসনকালের ‘‌কালো দাগ’‌ হয়ে থাকবে। আইনশৃঙ্খলার তুলনা টেনে মায়াবতী দাবি করেছেন, তাঁর জমানায় উত্তরপ্রদেশে এমন কোনও ঘটনা ঘটেনি। তাঁর দাবি, যখন তিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন, তখন মোদির চেয়ে ঢের ভাল শাসনব্যবস্থা ছিল উত্তরপ্রদেশে। মোদির বিরুদ্ধে দেশে ‘‌স্বৈরাচারী শাসন’‌ ও ‘‌ঘৃণা’‌ ছড়ানোর অভিযোগও করেছেন বসপা নেত্রী। বহেনজি বলেছেন, দেশ জুড়ে বাড়তে থাকা সাম্প্রদায়িক হিংসার নিরিখে নরেন্দ্র মোদি দেশের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে একেবারেই বেমানান।
প্রথম থেকেই সমাজবাদী পার্টি ও বহুজন সমাজ পার্টির ‘‌মহাজোট’কে আক্রমণ করেছেন প্রধানমন্ত্র্রী। নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে বুয়া-‌বাবুয়াকে টার্গেট করেছেন মোদি। তার জবাবে উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেছেন, ‘‌মোদিজি মুখ্যমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অনুপযুক্ত। গুজরাটে মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন রাজধর্ম পালনে ব্যর্থ হয়েছেন।’‌ তাঁর অভিযোগ, ভারতীয় সংস্কৃতি, সংবিধান এবং আইন রক্ষায় প্রধানমন্ত্রী অযোগ্য।  
গত কয়েকদিনে রাজস্থানের আলুয়ার গণধর্ষণ নিয়ে মোদি-‌মায়ার মধ্যে আক্রমণ-প্রতি আক্রমণ চলছিলই। ধর্ষণকান্ডে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন বসপা নেত্রী। নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে মোদি তোপ দেগেছিলেন মায়াবতীর বিরুদ্ধে। বলেছিলেন, মায়াবতীর চোখে ‘কুমিরের কান্না।’ দাবি করেছিলেন, ‘‌হিম্মত থাকলে রাজস্থানে কংগ্রেস সরকারের ওপর থেকে সমর্থন প্রত্যাহার করুন।’‌ দু’‌দিন আগে টুইটারে মোদি সরকারকে আক্রমণ করেন বসপা নেত্রী। টুইটে লেখেন, ‘মোদি সরকার ডুবন্ত জাহাজ। এটার প্রমাণ, আরএসএস সেই জাহাজ ছেড়ে দিয়েছে।’ সেই সঙ্গে জুড়ে দেন, ‘‌প্রতিশ্রুতি পূরণ করতে না পারায় ক্ষুব্ধ দেশের জনতা। ক্ষোভের আঁচ পেয়েই বিজেপি–‌র হয়ে প্রচারে কোথাও আরএসএস নেতা-কর্মীদের দেখা মিলছে না।’ গতকালের পর এদিন ফের নরেন্দ্র মোদিকে আক্রমণ করলেন মায়াবতী।
উত্তরপ্রদেশের বালিয়াতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এক সভায় সপা-বসপার দুর্নীতি নিয়ে সরব হন। বিরোধীদের লক্ষ্য করে তিনি বলেছিলেন, তাঁর বিরুদ্ধে বেনামি সম্পত্তির, দুর্নীতির কোনও প্রমাণ দিতে পারবে না কেউ। এদিন মায়াবতী বলেছেন, ‘গোটা দেশ জেনে গেছে, বেনামি সম্পত্তি ও দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত অধিকাংশই বিজেপি–‌র লোক। বিজেপি রাজনৈতিক শালীনতা হারিয়েছে। মোদি কাগজে ওবিসি দেখান। একইভাবে কাগজেই কেবল সততা দেখান!‌’‌ মায়ার দাবি, তার দলের বদনাম করার জন্য সমস্ত প্রয়াস চালিয়েও কোনও লাভ হয়নি। প্রমাণিত হয়েছে বসপা কোনও দুর্নীতির সঙ্গে আপস করে না। মোদি তাঁর চেয়েও বেশি সময় গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রিত্ব সামলেছেন ঠিকই, কিন্তু দেশের ইতিহাসে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন মোদির বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার কালো ছাপ থেকে যাবে বলেও দাবি 
করেছেন মায়াবতী।  

জনপ্রিয়

Back To Top