নিউজপোল ডেস্ক:‌ তার প্যারোলে ছাড়া পাওয়া নিয়ে বারবার সমালোচনা হয়েছে। তা বলে প্যারোল মঞ্জুর থেমে থাকেনি। বিভিন্ন কারণে বহুবার প্যারোল মঞ্জুর হয়েছে  তার। করোনা ভাইরাস দেশে থাবা বসানোর সময় থেকেই প্যারোলে জেলের বাইরে ছিল। এবার চিরতরে মুক্তিই পেল মনু শর্মা ওরফে সিদ্ধার্থ বশিষ্ট। মডেল জেসিকা লালের হত্যাকারী।  রায় পর্যালোচনা বোর্ড মনু শর্মার মুক্তির সুপারিশ করেছিল। তাতে সম্মতি জানিয়েছেন দিল্লির লেফটেনান্ট গভর্নর। তাঁর সম্মতিতেই সোমবার মনু শর্মা সহ ১৮ জন কয়েদি জেল থেকে ছাড়া পায়। কোভিড–১৯ রুখতে দিল্লির তিহার জেলে কয়েদি সংখ্যা কমানো হয়। অনেককেই প্যারোলে মুক্তি দেওয়া হয়। তাদের মধ্যে ছিল মনুও।  ১৯৯৯ সালের ৩০ এপ্রিল একটি পার্টিতে মনু শর্মাকে পানীয় পরিবেশন করতে অস্বীকার করেন জেসিকা। তাঁকে গুলি চালায় প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বিনোদ শর্মার ছেলে মনু। ২০০৬ সালে দোষী সাব্যস্ত হয় মনু। যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়। ভাল আচরণের জন্য গত দু’‌বছর মুক্ত জেলে ছিল মনু। সকাল ৮ টায় কাজে বেরিয়ে সন্ধে ৬টা ফিরত। কয়েদিদের পুনর্বাসনের জন্য একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন চালায় সে।  জেসিকার বোন সাব্রিনা অবশ্য ২০১৮ সালেই জানিয়ে দিয়েছিলেন, মনু শর্মা ছাড়া পেলে তাঁর আপত্তি নেই। কারণ জেসের কয়েদিদের জন্য অনেক কিছু করছে সে। আর দিদির হত্যাকারীকে তিনি ক্ষমা করে দিয়েছেন। 

জনপ্রিয়

Back To Top