আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ করোনা সংক্রমণের পর গোটা দুনিয়াই অনেকটা বদলে গেছে। এমনকী দেশগুলোর পরস্পরের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কেও পরিবর্তন এসেছে। এসবের মধ্যেই দক্ষিণ এশিয়ায় আধিপত্য কায়েম করতে উঠেপড়ে লেগেছে চীন। এবার চীনকে আরও একটু কড়া বার্তা দিতে চায় ভারত। তাই কূটনৈতিকস্তরেই রদবদল আনতে চলেছে। তিনটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেশি দেশে নতুন দূত নিয়োগ করছে দিল্লি। 
ঢাকায় বিক্রম ডোরাইস্বামী, কাবুলে রুদ্রেন্দ্র ট্যান্ডন এবং তাইপেইতে গৌরাঙ্গলাল দাসকে পাঠাচ্ছে কেন্দ্র। ১৯৯২ ব্যাচের আইএফএস ডোরাইস্বামী এখন অতিরিক্ত সচিব পদে রয়েছেন। বাংলাদেশ, মায়ানমার, আন্তর্জাতিক সম্মেলন, বিশ্ব সংগঠনের বিষয়টি দেখেন তিনি। বিদেশমন্ত্রী জয়শঙ্করের প্রিয়পাত্র ডোরাইস্বামী ২০১৮ পর্যন্ত দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রদূত ছিলেন। ২০১২ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত তিনি বিদেশ মন্ত্রকের মার্কিন বিভাগের যুগ্ম সচিব ছিলেন। ওই সময়ই আবার আমেরিকায় ভারতীয় রাষ্ট্রদূত ছিলেন এস জয়শঙ্কর। ম্যান্ডারিন, ফরাসি, উর্দু— তিনটে ভাষাতেই তুখোড় ডোরাইস্বামী। অতীতে তাশখন্দের রাষ্ট্রদূত ছিলেন। 
এবার বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক আরও মজবুত করতে এই আইএফএস–এর ওপরই ভরসা রাখছে কেন্দ্র। বাংলাদেশ গঠনের পিছনে বড়সড় ভূমিকা রয়েছে ভারতের। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গেও ভালো সম্পর্ক দিল্লির। কিন্তু সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের জন্য কিছুটা হলেও মনোক্ষুণ্ণ হাসিনা সরকার। এই সুযোগে সেখানে ক্রমেই প্রভাব বিস্তার করছে চীন। বেজিংয়ের সঙ্গে ঢাকার নতুন বাণিজ্যিক চুক্তিতে সিঁদূরে মেঘ দেখছে ভারত। এককালে ঘনিষ্ঠ প্রতিবেশি নেপালের সঙ্গে নতুন মানচিত্র নিয়ে সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। ঢাকাকে কোনও মতেই দূরে সরাতে চায় না মোদি সরকার। এখন ঢাকায় রাষ্ট্রদূতের পদে রয়েছেন রিভা গাঙ্গুলি দাস। তিনি বিদেশ মন্ত্রকের সচিব পদে যোগ দেবেন। 
অন্যদিকে আফগানিস্তান থেকে সরছে মার্কিন সেনা। তালিবানের সঙ্গে শান্তিচুক্তি হয়েছে। এ হেন সময়ে আফগানিস্তানের পরিস্থিতির ওপরেও কড়া নজর রাখতে চায় দিল্লি। তাই সেখানে বিনয় কুমারকে সরিয়ে পাঠানো হচ্ছে রুদ্রেন্দ্র ট্যান্ডনকে। সাউথ ইস্ট এশিয়ান নেশন–এর ১০ সদস্যের সংগঠনে এখন দূত ১৯৯৪ ব্যাচের এই আইএফএস। 
ভারত–তাইপেই অ্যাসোসিয়েশনের ডিরেক্টর জেনারেল পদে নিযুক্ত হচ্ছে গৌরাঙ্গলাল দাস। তাইওয়ানের কূটনৈতিক মঞ্চ হিসেবে কাজ করে এই সংগঠন। ভারতী এক–চীন নীতি মেনে চলে। এই নীতি অনুযায়ী চীনে একের বেশি রাষ্ট্রদূত পাঠাতে পারবে না ভারত। ম্যান্ডারিন ভাষায় পারদর্শী দাসই এখন সামলাবেন তাইওয়ানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক। 

জনপ্রিয়

Back To Top