আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ চতুর্থ দফার লকডাউন শেষ হচ্ছে রবিবার। দেশে করোনা পরিস্থিতির যা হাল, তাতে লকডাউন বাড়ার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। সম্ভবত পঞ্চম দফার লকডাউনে প্রবেশ করতে চলেছে দেশ। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক কিংবা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির তরফে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। আগামিকাল পঞ্চম দফার লকডাউন ঘোষণার সম্ভাবনা রয়েছে। 
প্রথম দফার লকডাউন শুরু হয়েছিল ২৪ মার্চ থেকে। প্রথম দফায় কড়াকড়ি ছিল সবচেয়ে বেশি। মানুষকে গৃহবন্দি থাকতে হয়েছিল। স্বাভাবিক চলাফেরায় ছিল বিধিনিষেধ। অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দোকান ছাড়া বাকি সব ছিল বন্ধ। এরপর দ্বিতীয়, তৃতীয় দফা কাটিয়ে দেশে চলছে চতুর্থ দফার লকডাউন। সেই সঙ্গে ছাড়ও মিলেছে একাধিক ক্ষেত্রে। অত্যাবশ্যকীয় ছাড়া অন্যান্য পণ্যের দোকান খুলেছে। পঞ্চম দফায় লকডাউন বাড়লেও ছাড়ের পরিমাণও বাড়ার তাই স্বাভাবিক ইঙ্গিত রয়েছে। 
কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বৃহস্পতিবারই সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেছেন। যে আলোচনায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা লকডাউন বাড়ানোর পক্ষেই মত দিয়েছেন। শুক্রবার গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ান্ত বলেছেন, ‘‌অমিত শাহের সঙ্গে টেলিফোনে কথা হয়েছে। লকডাউন সম্ভবত আরও ১৫ দিন বাড়বে।’‌
পঞ্চম দফার লকডাউনে আবার কোথায় কোথায় ছাড় মিলতে পারে, তার একটা ইঙ্গিত সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম মারফত পাওয়া গেছে। 

 

●‌ পঞ্চম দফার লকডাউনে আরও বেশ কিছু রুটে বিমান পরিষেবা চালু হতে পারে। কেন্দ্রীয় সরকার অনুমতি দিয়েছে দেশের যে কোনও বিমানবন্দর থেকে বিমান চলাচল করতে পারে। চাহিদা অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট বিমানসংস্থা যে কোনও বিমানবন্দর থেকে বিমান চালাতে পারে। যদিও উল্লেখযোগ্য, মেট্টো রুটের চেয়ে নন মেট্রো রুটেই বিমান চলাচলের চাহিদা বেশি। 
●‌ ইতিমধ্যেই শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেন চালাতে শুরু করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। ১ জুন থেকে আরও ১০০ জোড়া মেল ও এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল শুরু করতে পারে। যার বুকিং ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে। পরবর্তীতে এসি ট্রেন চালানোর কথা ভাবনায় রয়েছে রেলের।
●‌ আন্তঃরাজ্য বাস চলাচল আরও বাড়তে পারে। ইতিমধ্যেই ওডিশা, অন্ধ্রপ্রদেশে আন্তঃরাজ্য বাস চলাচল শুরু করেছে। 
●‌ মেট্রো পরিষেবা শুরু হতে পারে কিছু জায়গায়। তবে সামাজিক দূরত্বের বিধি মানতে হবে। যাত্রী বেশি নেওয়া যাবে না। 
●‌ পঞ্চম দফার লকডাউনে আরও দোকান খুলতে পারে। এমনকি মার্কেটের ভিতরে আরও বেশি দোকান খোলার অনুমতি মিলতে পারে। শপিং মল খোলার বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি। 
●‌ জিম, সিনেমা হল, বন্ধ থাকবে। তবে সেলুন বা পার্লার যথারীতি খোলা থাকবে।
●‌ স্কুল খোলার ক্ষেত্রে একটা গাইডলাইন তৈরি করছে মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের আগে স্কুলে পাঠানো হবে। পড়ুয়াদের মাস্ক ব্যবহার ও সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং বজায় রাখা বাধ্যতামূলক থাকবে। ক্লাসরুম নিয়মিত স্যানিটাইজ করতে হবে। 

জনপ্রিয়

Back To Top