আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দেশে লকডাউন না হলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা আরও বেশি হত। ফের ওই এক সুর গাইছে বলছে কেন্দ্র। অথচ এদিকে প্রত্যেকদিন করোনা আক্রান্ত ও তার জেরে মৃত্যুর পরিসংখ্যান নতুন নতুন রেকর্ড গড়ছে। ছাপিয়ে যাচ্ছে বিগত দিনগুলোর পরিসংখ্যানকে। তারপরও কেন্দ্রের দাবি, এই পরিসংখ্যান মাত্রা ছাড়াত যদি না দেশে লকডাউন কার্যকর থাকত। এদিন স্বাস্থ্য মন্ত্রকের এক সাংবাদিক বৈঠকে নীতি আয়োগ সদস্য ভিকে পাল বলেছেন, ৩ এপ্রিল থেকে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা নিয়মিতহারে কমছে, এই পতনের কারণ দেশজুড়ে লকডাউন। যদি লকডাউন না হত, এই সংখ্যা অনেক বেশি হত। তাঁর বক্তব্য, লকডাউনের ফলে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা যেমন কমেছে, তেমন উল্লেখযোগ্যভাবে কমেছে করোনায় মৃতের সংখ্যা। লকডাউনের আগে ও পরে পরিস্থিতির আকাশপাতাল পরিবর্তন হয়েছে। পরিসংখ্যান দিয়ে তিনি জানাচ্ছেন, গতকাল পর্যন্ত করোনা সংক্রমণের
ঘটনা শুধু কয়েকটি রাজ্য, শহর বা জেলায় সীমাবদ্ধ রয়েছে। ৫টি রাজ্যে ৮০ শতাংশ করোনা কেস, ৫টি শহরে ৬০ শতাংশের বেশি ও ১০টি রাজ্যে ৯০ শতাংশের বেশি, ১০টি শহরে ৭০ শতাংশের বেশি। 
চতুর্থ পর্যায়ের লকডাউন চলছে সারা দেশে। এই মুহূর্তে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ইতিমধ্যেই একলাখ ছাড়িয়ে গিয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় একদিনে রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত হয়েছেন, ৬,০৮৮ জন। এ পর্যন্ত করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩,৫৮৩।

জনপ্রিয়

Back To Top