আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ টানা কয়েক দিনের বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত কেরল। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, আরও বৃষ্টি হবে আগামী দিনে। এর মধ্যেই ধস নামছে। বাড়ছে জলস্তর। মারা গেছেন অন্তত ৩০ জন। নিখোঁজ ৫০ জন। 
উদ্ধারে নেমেছে কেরল পুলিশ, বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। এগিয়ে এসেছেন নাগরিকরাও। উদ্ধারে সব থেকে বেশি সক্রিয় কিন্তু কেরলের মৎস্যজীবীরা। সারা বছর নৌকায় চেপে কেরলের নদী, ব্যাকওয়াটারে মাছ ধরে বেড়ান তাঁরা। তাই এসব এলাকা তাঁদের নখের। এবার এই মৎসয়জীবীরাই বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী আর পুলিশকে নিয়ে যাচ্ছেন সেসব প্রত্যন্ত জলা জায়গায়। উদ্ধার করে আনছেন হাজার হাজার মানুষকে। 
শুধু তাই নয়, বন্যা বিধ্বস্ত এলাকায় লাখ লাখ মানুষকে এই নৌকায় চেপেই খাবার, ওষুধ সরবরাহ করে আসছেন মৎস্যজীবীরা। তবে এই প্রথম নয়। ২০১৮ সালেও ভয়াবহ বন্যা হয় কেরলে। সেবারও ঈশ্বরের নিজের দেশে ত্রাতা হয়ে এসেছিলেন এই মৎস্যজীবীরা। ২০১৮ সালে কয়েকশো মৎস্যজীবী কয়েক হাজার মানুষের প্রাণ বাঁচান। সেভাবে কোনও প্রশিক্ষণও ছিল না তাঁদের। তার পরেই ২০১৯ সালে ১৭৭ জন মৎস্যজীবীকে নিয়োগ করে কেরল পুলিশ। বন্যা বা বিপর্যয়ের সময় উদ্ধারের ভার বর্তায় তাঁদের ওপর। সেই কাজটাই নিজের মতো করে চলেছে তাঁরা। 
   ‌

জনপ্রিয়

Back To Top