আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দেশের প্রায় সবকটি সংবাদ মাধ্যমে সম্প্রচারিত এক্সিট পোল বলছে ক্ষমতায় ফিরছেন মোদি। সেটা দেখে এখন থেকে পরিকল্পনা শুরু করে দিয়েছে বিজেপি শিবির। অমিত শাহ শরিকদের নৈশভোজে ডেকেছেন। একেবারে পার্টি মুডে চলে গিয়েছে বিজেপি। 
তারপরেও বিরোধী শিবিরের রণকৌশল নির্ধারণ নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক একটি সন্দেহ জাগিয়ে রাখছে। শেষদফা ভোটের দিনেই চন্দ্রবাবু নাইডু রাহুল গান্ধী এবং সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে বৈঠক সেরেছেন। এর আগে মায়াবতী, অখিলেশ, শরদ পাওয়ার, ইয়েচুরির সঙ্গেও দফায় দফায় বৈঠক করেছেন তিনি। সোমবার তো হাইভোল্টেজ মিটিং তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জির সঙ্গে। এর থেকে বোঝাই যাচ্ছে বিরোধী শিবিরে কিছু একটা তো ঘটছেই। সেটা ২৩ মে স্পষ্ট হলেও রাজনীতিকরা জল্পনা শুরু করে গিয়েছেন। 
বিরোধী শিবির যে এক্সিট পোল মানতে নারাজ সেটা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে তাঁদের দফায় দফায় বৈঠকেই। কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী দাবি করেছেন এক্সিট পোল বিষয়টাই ভুয়ো। তিনি যে কিছুতেই এই সমীক্ষা রিপোর্ট মানতে নারাজ সেটা বুঝিয়ে দিয়েছেন। একইসঙ্গে প্রশ্ন তুলেছেন ইভিএমের বিশ্বাসযোগ্যতা নিয়ে। ভোটের আগে মহাজোটের দলগুলি ইভিএম বাতিলের দাবি তুলেছিল। এই নিয়ে নির্বাচন কমিশনেও আবেদন জানিয়েছিল। যদিও সেই আবেদন কমিশন খারিজ করে দেয়। তাঁদের অভিযোগ ছিল বিজেপি ইভিএমে কারচুপি করছে। সেকারণেই তাঁরা বিপুল সংখ্যক ভোট পাচ্ছে। এই প্রতারণার প্রতিবাদে তিনি সুপ্রিম কোর্টে যাবেন বলেও জানিয়েছেন। কুমারস্বামীর দাবি প্রথম বিশ্বের দেশ গুলিতেও ব্যালটে ভোট হয়। তাই ফিরিয়ে আনা হোক ব্যালট। 

 

ছবি:দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস

জনপ্রিয়

Back To Top