‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ কখনও সময়ে আসে না পুলিস। ঘটনা ঘটে যাওয়ার পর দেখা মেলে তাঁদের। পুলিস–প্রশাসন সম্পর্কে এই কথাটিই বাজারে প্রচলিত। কিন্তু এরকমই এক পুলিস কর্মীর নৈপুন্যেই বেঁচে গেল সাধারণ মানুষের প্রায় ৯২৫ কোটি টাকা। সীতারাম নামে এক পুলিস কনস্টেবল একা হাতেই রুখে দিলেন ব্যাঙ্ক ডাকাতি। টাকা চুরি করতে এসেও সীতারামের ভয়েই পালিয়ে গেল ১৩ জনের একটি দুষ্কৃতী দল।  গত সোমবার রাত আড়াইটে নাগাদ ঘটনাটি ঘটেছে জয়পুরের একটি ব্যাঙ্কে।  পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, গভীর রাতে ডাকাতির উদ্দেশে ব্যাঙ্কটিতে ঢোকার চেষ্টা করে ১৩ জন দুষ্কৃতীর দলটি। গেটে পাহারারত নিরপত্তারক্ষীকে অতি সহজেই কাবু করে ফেলে তারা। ভিতরে তখন কর্তব্যরত ছিলেন সীতারাম। সেখানে থেকেই তিনি ওই ডাকাতদের গেট খোলার চেষ্টা করতে দেখেন। বিপদ আঁচ করতে পেরে মুহূর্তে দুষ্কৃতীদের উদ্দেশে গুলি ছোড়েন সীতারাম। এরপর অ্যালার্মও বাজিয়ে দেন। ফলে কিছুক্ষণের মধ্যেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় বিশাল পুলিস বাহিনী। নিরুপায় হয়ে পালাতে বাধ্য হয় ডাকাতদল। ঘটনার পর কার্যত হিরো বনে গিয়েছেন সীতারাম। এদিকে, দুষ্কৃতী দল নিজেদের কাজে সফল হলে সেটা হত দেশের সবচেয়ে বড় ডাকাতির ঘটনা। কারণ ব্যাঙ্কের ওই শাখাটিই প্রধান এবং অন্যতম ছিল। ফলে সেটি থেকেই সপ্তাহের শুরুতে শহরের অন্য শাখায় টাকা পাঠানো হয়। ফলে ব্যাঙ্কে ওইদিন মজুত ছিল প্রায় ৯২৫ কোটি টাকা। পুলিসের সন্দেহ, ডাকাত দল এর পুরোটাই জানত। এমনকি ব্যাঙ্কের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও যে খুব ভাল নয়, সেটা তদন্তে জানতে পেরেছে পুলিস। এদিকে, ঘটনাস্থল থেকে মাত্র তিন কিলোমিটার দূরে রাজ্য সচিবালয়। কিন্তু এ ধরনের স্থানে কীভাবে এত বড় দুঃসাহসিক একটি ঘটনা ঘটল? সেই নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন অনেকে। প্রশ্ন উঠছে রাতে জয়পুর পুলিসের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে।‌  ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top