আজকাল ওয়েবডেস্ক: উন্নাও যেন ‘‌ধর্ষণের রাজধানী।’‌ উন্নাওয়ের ধর্ষিতা মারা যাওয়ার কয়েক ঘণ্টা হয়ে গেলেও বদলায়নি কিছুই। 
তাঁকে ধর্ষণ করতে পারে এই ভয়ে এক মহিলা পাঁচজন পুরুষের নামে এফআইআর লেখাতে আসেন থানায়। পুলিশ সটান বলে দিয়েছে, ধর্ষণ হওয়ার পরে তিনি যেন অভিযোগ লেখাতে আসেন। এখন অভিযোগ নেওয়া যাবে না।  
৪৪ ঘণ্টা লড়াই করেও বাঁচেনি উন্নাওয়ের ধর্ষিতা ২৩ বছরের মেয়ে। সারা দেশ উত্তাল। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন এরপর থেকে নারী নিরাপত্তার দিকে খেয়াল রাখা হবে। কিন্তু যোগীর রাজ্যে সংশোধন যেন কিছুতেই হচ্ছে না। কয়েক মাস আগে এক মহিলা ওষুধ কেনার জন্য বাইরে বেরিয়েছিলেন। পাঁচজন পুরুষ এসে তাঁর জামাকাপড় ধরে টানাটানি করে। মহিলা জানান, ওই পুরুষরা তাঁকে ধর্ষণ করার চেষ্টাও করেছিল। এখন আবার ওই পুরুষরা জেনে গেছে, ওই মহিলাটি পুলিশের কাছে অভিযোগ লেখানোর চেষ্টা করেছেন। তাই রোজ মহিলার বাড়িতে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। প্রাণনাশের হুমকিও রয়েছে। গত তিন মাস ধরে সেই মহিলাটি পুলিশের কাছে গিয়ে অনুরোধ করতে থাকেন যাতে তাঁর অভিযোগ নেওয়া হয়। মহিলার কথায় ‘ঘটনার পরে আমি ১০৯০–তে ফোন করি। সেখানে বলে আমি যেন ১০০–তে ফোন করি। সেই নম্বরে ফোন করার পরে বলে স্থানীয় থানায় অভিযোগ দায়ের করতে। কিন্তু উন্নাও থানার একজন আধিকারিক আমাকে বিহার থানায় অভিযোগ করতে বলেন।’ সেই থেকে মহিলা তিন মাস ধরে একবার বিহার থানা, একবার উন্নাও থানা, এই করে যাচ্ছেন, কিন্তু কোনও সুরাহা হচ্ছে না। পুলিশের কর্মীদের মুখ থেকে তিনি কেবল একটা কথাই শুনতে পাচ্ছেন, ‘ধর্ষণ করার চেষ্টা করেছে মাত্র, করেনি তো!‌ যখন হবে তখন দেখব আমরা।’ আইজি এসকে ভগতকে জিজ্ঞেস করাতে তিনি এই অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করে জানান, অভিযোগ দায়ের করার জন্য কেউ নাকি আসেনি।  

জনপ্রিয়

Back To Top