আজকালের প্রতিবেদন
টিকা চাই, টিকা। করোনা অতিমারীর মোকাবিলায় হন্যে হয়ে টিকার খেঁাজে বিশ্বব্যাপী গবেষক, বিজ্ঞানীরা। অন্য দিকে অদ্ভুত সব নিদান দিচ্ছেন নেতারা। গোমূত্র পানের পরামর্শ এসেছে যত্রতত্র। একটি নির্দিষ্ট সংস্থার পাপড় খেয়ে, করোনা প্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়ানোর কথা বলে নিজেই আক্রান্ত হয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অর্জুনরাম মেঘওয়াল। এবার রাজস্থানের টঙ্ক–‌সোয়াই মাধোপুর কেন্দ্রের সাংসদ সুখবীর সিং জৌনপুরিয়ার দাবি, সারা গায়ে মাটি লেপে, শঙ্খ বাজালে করোনা তাড়ানো সম্ভব। কারণ এতে শরীরে যে রোগ–‌প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে, তাতে করোনা ধারেকাছে ঘেঁষে না। এ বছর ২১ জুন আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে সারা গায়ে মাটি মেখে, আগুনের চক্রবৃত্তের মধ্যে বসে যোগাসন করেছিলেন। দাবি করেছিলেন, এটা সব রোগ সারানোর উৎস।
সর্বাঙ্গে কাদা মেখে, হাতে শঁাখ নিয়ে বিজেপি সাংসদ জৌনপুরিয়ার যে সাম্প্রতিকতম ভিডিও সাড়া ফেলে দিয়েছে তাতে তিনি বলেছেন, ‘‌আমি বিশ্বাস করি, যদি আপনার ফুসফুস ও কিডনি ঠিকঠাক কাজ করে, তা হলে অনায়াসেই শঙ্খ বাজাতে পারবেন। এটা করলে রোগ–‌প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। ওষুধে কিছু হয় না। যা হয়, প্রাকৃতিক ভাবেই হয়। শরীরে মাটির প্রলেপ লাগানোও সে–‌রকমই একটি উপায়। রোদে পোড়া, বৃষ্টিতে ভেজা শরীরের পক্ষে খুবই ভাল।’‌
সদ্য রামমন্দিরের ভূমিপুজোর আগে দৌসার বিজেপি সাংসদ যশকর মিনা বলেছিলেন, মন্দির হলেই করোনা দূর হবে। একই দাবি করেছিলেন মধ্যপ্রদেশের প্রোটেম স্পিকার রামেশ্বর শর্মা।
সুখবীর সিং নামকরা প্রোমোটার। গুড়গঁাওয়ে তঁার ‘‌এসএস গ্রুপ’ বেশ ভাল ব্যবসা করে। টঙ্কে সাধারণ মানুষ কীভাবে রোগ–‌প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়েছেন, তা দেখে যেতে অনুরোধ করেন তিনি। জড়িবুটি, গাছের পাতা খেতেও পরামর্শ দেন। তঁার দাবি, কাদা গায়ে মাখলে মধুমেহ বা ডায়াবেটিস রোগ হয় না।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top