গালওয়ান থেকে শিক্ষা!‌ চীনকে চোখ দেখাতে সীমান্তে শক্তি বাড়াচ্ছে ভারত

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ গালওয়ান সংঘর্ষ এক বছরে পা দিল। গত বছর ১৫ জুন চীন সেনার সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয় ভারতীয় বাহিনীর। শহিদ হন ২০ জন জওয়ান। তার পর থেকেই সীমান্তে পরিকাঠামো ঢেলে সাজাতে শুরু করেছে ভারত। এখনও হয়তো চীনের থেকে সামরিক ক্ষমতায় বেশ কিছুটা পিছিয়ে। তবু যাতে চোখে চোখ রাখতে পারে, তাই নিজের শক্তি বাড়াচ্ছে ভারত।
এলএসি বরাবর তৈরি করছে রাস্তা, সুড়ঙ্গপথ, সেতু। বেশিরভাগটাই হচ্ছে পূর্ব লাদাখে। এক সেনা কর্তা জানালেন, চীনে সীমান্তে ৫০ থেকে ৬০ হাজার জওয়ান মজুত রয়েছে। বৃহস্পতিবার চীন সীমান্ত লাগোয়া ১২টি সড়কের উদ্বোধন করলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। ভার্চুয়াল মাধ্যমে। ১২টির মধ্যে একটি হলে কিমিন–পোটিন সংযোগকারী ২০ কিলোমিটারের সড়ক। ৯টি রাস্তা রয়েছে অরুণাচল প্রদেশে। একটি লাদাখ এবং একটি জম্মু ও কাশ্মীরে। 
বর্ডার রোডস অর্গানাইজেশন (‌বিআরও)‌ এগুলো তৈরি করেছে। এই সড়কে মাধ্যমে দ্রুত সীমান্তে পৌঁছতে সুবিধা হবে সেনার। সামরিক অস্ত্র পরিবহনেও সুবিধা হবে। রাজনাথ সড়ক উদ্বোধন করে জানালেন, ভারত শান্তি চায়। তবে কেউ আগ্রাসী আচরণ করলে ভারত যোগ্য জবাব দিতে জানে। 
গত ১ বছরে বিআরও ১২০০ কিলোমিটার রাস্তা তৈরি করেছে এলএসি বরাবর। এর মধ্যে ১৬২ কিলোমিটার রাজস্থানে। বাকিটা জম্মু কাশ্মীর থেকে অরুণাচল পর্যন্ত। ‘‌কৌশলগত দিক থেকে জরুর’‌ ৭৩টি রাস্তার নির্মাণেও গতি আনা হচ্ছে। গত ১ বছরে বিআরও ৭৪টি স্থায়ী সেতু এবং ৩৩টি অস্থায়ী সেতুও তৈরি করেছে সীমান্ত এলাকায়।