Border: আড়াই বছর পর খুলল ভারত-ভুটান সীমান্ত, উচ্ছ্বাস স্থানীয়দের 

অতীশ সেন, বানারহাট, ২৩শে সেপ্টেম্বর: প্রায় আড়াই বছর প্রতীক্ষার পর শুক্রবার খুলে গেল ভারত-ভুটান সীমান্ত।

ভারত-ভুটান সীমান্তের জয়গাঁও-ফুন্টশিলিং গেট এবং চামুর্চি-সামসি গেটের পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গ ও অসম সীমান্তে অবস্থিত দুই দেশের সমস্ত সীমানাই এদিন খুলে গেল। কোভিডের প্রথম ঢেউয়ের সময় ২০২০ সালের মার্চ মাস থেকে সীমান্ত দিয়ে পণ্য পরিবহন ও যাতায়াত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। দুই দেশের মধ্যে পরবর্তীতে পণ্য পরিবহন চালু হলেও সাধারণ বাসিন্দা ও পর্যটকদের যাতায়াত বন্ধ ছিল। এবার সীমান্ত খুলে যাওয়ায় বাণিজ্যিক যাতায়াত ও সীমান্ত এলাকার সাধারণ বাসিন্দাদের বিভিন্ন প্রয়োজনে দুই দেশের মধ্যে যাতায়াত করতে পারবেন। পর্যটকরা ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে পারো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এবং ভুটানের চুখা জেলার ফুন্টশিলিং-জয়গাঁও সীমান্ত, অসমের গেলফু, সামদ্রুপ জেলার সীমান্ত দিয়েও প্রতিবেশী দেশে ঢুকে ভ্রমণের সুযোগ পাবেন।
সীমান্ত বন্ধ থাকায় ভুটানের বাসিন্দারা তাদের নিত্য প্রয়োজনে, জিনিসপত্র কেনাকাটা ও ওষুষপত্রের প্রয়োজনে যেমন ভারতে আসতে পারছিলেন না, তেমনি সীমান্ত বন্ধ থাকায় ভারতীয় ব্যবসায়ীরাও ভুটানে যেতে পারছিলেন না এবং সীমান্ত এলাকার ভারতীয় ব্যাবসায়ীরাও বিপুল ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছিলেন। শুক্রবার সীমান্ত খোলার অনুষ্ঠান উপলক্ষে ভারত-ভুটান সীমানের গেটগুলিতে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। সামসি সীমান্তে ভুটানের রীতি মেনে ফিতে কেটে গেট খোলা হয়। এই অনুষ্ঠান উপলক্ষে সেখানে উপস্থিত ছিলেন ভুটানের সামসি জেলার জেলাশাসক পাসাং দর্জি, পুলিশ সুপার লনড্রুপ দর্জি, ইন্দো- ভুটান ফ্রেন্ডশিপ কমিটির সদস্য সহ দুই দেশের সীমান্ত এলাকার ব্যবসায়ীরা। অনুষ্ঠানে ইন্দো-ভুটান বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক অটুট রাখার বিষয়য়ে ভুটানের আধিকারিকেরা জোর দিয়ে বক্তব্যে রাখেন। সীমান্ত খুলে যাওয়ায় পর্যটকেরা যেমন খুশি তেমনি দুই দেশের সীমান্ত এলাকার সাধারণ বাসিন্দারাও আনন্দ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।
 

আকর্ষণীয়খবর