আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‌দিল্লির শাহিনবাগের ছোঁয়া উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজেও। শহরের মনসুর পার্কে ঠাণ্ডা উপেক্ষা করে গত চারদিন ধরে অবস্থান বিক্ষোভ করছেন প্রতিবাদীরা। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে মঙ্গলবার বিকেল ৪টে নাগাদ ওই পার্কে জমায়েত হয়েছিলেন প্রায় ৫০০০ মানুষ। লখনউ থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরত্বে প্রয়াগরাজ। সেই পার্কে পড়ুয়াদের বক্তব্য শুনতে উৎসাহীদের ভিড় শুরু হয়। বাকিরা নিজেদের মতন করে প্রতিবাদের খণ্ডচিত্র মোবাইলে রেকর্ড করে চলেছেন। সেই প্রতিবাদ সভায় এক মহিলা বক্তব্য রাখতে গিয়ে দাবি করেন, ‘‌তিনি কোনও রাজনৈতিক দলের সমর্থক নয়।’‌ এতেই হাততালিতে ফেটে পড়ে গোটা পার্ক। তিনি বলেন, ‘‌যতক্ষণ না সরকারি তরফে কেউ এসে আমাদের দাবি শুনছেন, আমরা এখানেই অবস্থান করব। সরকারের সঙ্গে আলোচনার পরেই আমরা প্রতিবাদসভা তুলব।’ সংবাদমাধ্যমে এক পড়ুয়া‌ জানান, ‘‌আমরা এখনও চুপ থাকলে আর কখনও কেউ আমাদের হয়ে কিছুই বলবে না। আমরা প্রতিবাদ না করলে, দেশ জ্বলবে। আমরা কেউ প্রান্তিক সমাজে বাস করি না। তাই এই আগুন আমাদের আটকাতেই হবে।’‌ 
কেবল ছাত্র–যুব না, অনেক গৃহবধুকে দেখা গিয়েছে, এই প্রতিবাদে অংশ নিতে। উরুসা নামে এক তরুণীর মন্তব্য, ‘‌আমি আমার দুই সন্তানকে তাদের বাবার কাছে রেখে এসেছি। কারণ আমি মনে করি এটাই প্রতিবাদের আদর্শ সময়।’‌ তিনি অভিযোগ করেছেন, ‘‌আমাদের মান আছে, মর্যাদা আছে। আমাদের প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন দেশে কোনও এনআরসি হবে না। তাহলে অসমে ওটা কী হয়েছে ? বেরিয়ে এসে প্রতিবাদের এখনই উপযুক্ত সময়।’‌ পার্কের এককোণায় জাতীয় পতাকা লাগাতে লাগাতে ফতিমার দাবি, ‘‌এটা আপনাদের জন্য। আপনাদের খবরের সুবিধার জন্য। আপনারা দেখতে পারছেন, আমরা অনেকে নিজেদের মুখেও জাতীয় পতাকা এঁকেছি। তাঁকে প্রশ্ন করা হয়েছিল এতো মানুষ এখানে কী করছেন?’‌ ভারত মাতা কি জয় স্লোগান তুলে তাঁর জবাব, ‘‌কত নথি আপনারা চান? আমরা এদেশেই জন্মেছি।’‌          

জনপ্রিয়

Back To Top