আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিগত তিন–চার বছরে দেশে ক্রমশ বেড়েছে দলিত–সংখ্যালঘু নির্যাতন। বেড়েছে বৈষম্য। সম্প্রতি বেশ কয়েকটি রিপোর্টে সেই তথ্য প্রকাশিত হয়েছে। পাঞ্জাব দলিত–সংখ্যালঘু কমিশনের রিপোর্টেও একই তথ্য প্রকাশ পেল। দলিত নির্যাতনের ঘটনায় বারেবারেই উঠে এসেছে উত্তরপ্রদেশ, পাঞ্জাবের নাম। পাঞ্জাবের দলিত কমিশনের বক্তব্য, বিগত ১৫ বছরে পাঞ্জাবে নিগ্রহের যে কটি অভিযোগ জমা পড়েছিল, তার ৫০ শতাংশই ছিল দলিত নিগ্রহের ঘটনা। কিন্তু চলতি বছরে রাজ্যে দলিত নিগ্রহের ঘটনা ৭৮ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে। নিগ্রহ বলতে সব ধরণের নিগ্রহের ঘটনার কথাই বোঝাতে চেয়েছে কমিশন। কাজের জায়গায়, এমনকি পুলিশের কাছে অভিযোগ জানাতে গিয়েও নিগ্রহ এবং বৈষম্যের শিকার হয়েছেন দলিত–সংখ্যালঘু সম্প্রদায়, জানাচ্ছে কমিশন। চলতি বছরে মোট ১,‌১৪৮টি অভিযোগ জমা পড়েছে কমিশনের কাছে। তাতে মোট ৯০২টি অভিযোগই দলিত নিগ্রহের ঘটনা, যা গত ১৫ বছরে সবচেয়ে বেশি। গত বছরে দলিত নিগ্রহের অভিযোগ বেড়েছিল ৭৬ শতাংশ। ২০১৮ সালে মোট ১৬৮৫টি অভিযোগ জমা পড়েছিল, তার মধ্যে দলিত নিগ্রহের অভিযোগ ছিল ১,‌২৮৪টি। 
দলিত কমিশনের চেয়ারপারসন, তেজিন্দর কর সংবাদমাধ্যমের জানান, ‘‌সংখ্যা দেখেই বোঝা যাচ্ছে রাজ্যে দলিত নিগ্রহের ঘটনা কতটা বেড়ে গিয়েছে। সরকারি দপ্তরে কাজের ক্ষেত্রে প্রত্যেকদিন নিগ্রহ–বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন দলিতরা। পুলিশ অভিযোগ করতে গিয়েও সঠিক বিচার পাচ্ছেন না তাঁরা। সমাজে দলিতদের একঘরে করে রাখার চেষ্টা চলছে। অমানুষিক নির্যাতন করে তাঁদের পিটিয়ে মারার ঘটনাও বেড়ে গিয়েছে বিগত কয়েক বছরে।‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top