আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ একদিকে গোটা দেশে লোকসভা ভোট নিয়ে উত্তেজনা তুঙ্গে। অপরদিকে, সীমান্তেও ফের একবার উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার মুখে। বুধবার নিয়ন্ত্রণরেখার দশ কিলোমিটার দূরে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের উপর দিয়ে দু’‌টি পাকিস্তানি যুদ্ধবিমান উড়ে গিয়েছিল। আর তারই জবাব দিতে বৃহস্পতিবার গভীর রাতেই মহড়ায় নামল ভারতীয় বায়ুসেনা। একটি বা দু’‌টি নয়, একাধিক যুদ্ধবিমান এই মহড়ার অংশ নিয়েছিল। পাঞ্জাব এবং জম্মুর আকাশেই মূলত এই মহড়াটি হয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, পাকিস্তান যেন ফের একবার ভারতের আকাশসীমা লঙ্ঘনের প্রয়াস না করে, আর করলে তার ফল যে ভুগতে হবে, সে ব্যাপারে ইসলামাবাদকে সতর্ক করতেই বায়ুসেনার এই মহড়া। ‌যেকোনও পরিস্থিতিতে পাল্টা জবাব দিতে যে তৈরি ভারতীয় বায়ুসেনা, এই মহড়ার মাধ্যমে সেটাই বুঝিয়ে দিল।
এর আগে পুলওয়ামা হামলার বদলা নিতে ২৬ ফেব্রুয়ারি বালাকোটে জৈশ জঙ্গিঘাঁটিতে বোমাবর্ষণ করেছিল ভারতীয় যুদ্ধবিমান। পরে ২৭ ফেব্রুয়ারি ভারতের আকাশসীমা লঙ্ঘন করার চেষ্টা করলে ভারতীয় বায়ুসেনার সঙ্গে এঁটে উঠতে না পেরে ফিরে যায় পাক এফ–১৬ যুদ্ধবিমান। পরে তার মধ্যেই একটিকে পুরনো আমলের মিগ–২১ যুদ্ধবিমান দিয়ে ধ্বংস করেন বায়ুসেনার উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। তবে নিয়ন্ত্রণরেখা লঙ্ঘন করে পাকিস্তানে পৌঁছে যাওয়ায় তাঁর বিমানকে গুলি করে নামায় পাকিস্তানের এয়ারডিফেন্স সিস্টেম। পাক সেনা গ্রেপ্তার করলেও পরবর্তীতে ছেড়ে দেওয়া হয় অভিনন্দনকে। এদিকে, এই ঘটনার পরই যেন সীমান্তে অতিসতর্ক ভারত। আর বুধবার  সীমান্তের নিকট পাক যুদ্ধবিমানের আনাগোনার পর থেকে এয়ারডিফেন্স সিস্টেমকে তৈরি রাখা হয়েছে যেকোনও আক্রমণের জন্য। পাশাপাশি পাল্টা জবাব দেওয়ার জন্য যুদ্ধবিমানগুলিকে তৈরি রাখতেই অনু্ষ্ঠিত হয়েছে এই মহড়া।‌

জনপ্রিয়

Back To Top