আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ রমরম করে চলছে স্কুলের পঠন–পাঠন। আর শ্রেণীকক্ষের বাইরে থেকে উঁকি মারছে ছোট্ট একটি মেয়ে। গায়ে ময়লা পোশাক, মুখে একরাশ উৎকন্ঠা আর হাতে একটা বাটি। কয়েকদিন আগেই হায়দরাবাদ রাজ্যের একটি স্কুলের বাইরের এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। যদিও এই ছবিটার শেষটা ভাল হয়। কারণ মেয়েটিকে স্কুলে ভর্তি করে নেওয়া হয়। 
যদিও মেয়েটি কিন্তু স্কুলে ভর্তি হতে আসেনি। আসেনি স্কুলে পড়তে। তাহলে?‌ মেয়েটি বাটি হাতে এসেছিল যদি একটু খাবার পাওয়া যায়!‌ কয়েকদিন সে খেতে পায়নি। ছেঁড়া–ময়লা জামা গায়ে একটু খাবারের আশায় উঁকি দিয়েছিল মেয়েটি। যদি দয়া–পরবশ হয়ে দিদিমণিরা একটু খেতে দেয়। কিন্তু মুখে ছিল সরল লজ্জাও। তাই স্কুলে ঢুকে গিয়ে বলতে পারেনি, ‘‌আমায় একটু খাবার দেবে।’‌ 
এই ছবিটি ধরা পড়ে এমভি ফাউন্ডেশনের জাতীয় আহ্বায়ক ভেঙ্কট রেড্ডি। তারা শিশুকন্যার অধিকার রক্ষা নিয়ে কাজ করে থাকে। তিনি বিষয়টি দেখে এগিয়ে আসেন এবং মেয়েটিকে স্কুলে ভর্তি করে দেন। যাতে অন্তত মিড ডে মিল মারফত খেতে পায় ছোট্ট মেয়ে মোতি দিব্যা। কে এই মোতি দিব্যা?‌ কোথা থেকে এল সে?‌ স্কুল সূত্রে খবর, জমারদারের মেয়ে এই মোতি দিব্যা। সে স্কুলেরই পাশের বস্তিতে থাকে। এই স্কুলে কাজ করে তার পরিবার চলে যাওয়ার পর রোজ দিব্যা স্কুলের বাইরে এসে দাঁড়ায় একটু খাবারের আশায়। এখন সে স্কুলে ভর্তি হয়ে গিয়েছে। আর তাকে বাইরে থেকে উঁকি মারতে হবে না বাটি হাতে। স্কুলের জামাকাপড় পড়ে সে এখন খুশি। ‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top