আজকালের প্রতিবেদন, দিল্লি: আমফান ঝড়ে ক্ষয়ক্ষতির পর্যালোচনায় রাজ্যে আবারও প্রতিনিধিদল পাঠাচ্ছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। সোমবার দুপুরে এ খবর জানিয়েছে অমিত শাহর মন্ত্রক। এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজ্যকে যে কোনওরকম সহযোগিতা করতে প্রস্তুত রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। 
মন্ত্রকের তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, খুব তাড়াতাড়ি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের একটি দল আমফানের ক্ষয়ক্ষতি পর্যালোচনা করতে পশ্চিমবঙ্গে যাবে। আমফান ঘূর্ণিঝড়ের পর ক্ষয়ক্ষতি এবং ত্রাণ ও পুনর্বাসন পরিস্থিতি পর্যালোচনা করতে ক্যাবিনেট সচিব রাজীব গৌবার নেতৃত্বে একপ্রস্থ বৈঠক করেছে জাতীয় সঙ্কট ব্যবস্থাপনা কমিটি বা এনসিএমসি। বৈঠকে ক্যাবিনেট সচিব বলেছেন, ‘‌রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতিতে জরুরি ভিত্তিতে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোতে সম্পূর্ণ বিদ্যুৎ পরিষেবা, পানীয় জল ও টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা পুনঃস্থাপন করতে হবে।’‌ তিনি জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই রাজ্যকে ১০০০ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। সেনা ও এনডিআরএফ রাজ্য সরকারের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে পুনর্গঠনের কাজ করে চলেছে। প্রয়োজনে আরও বেশি সহযোগিতা করতে প্রস্তুত রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। রাজ্যকে দেওয়ার জন্য যথে‌ষ্ট পরিমাণ খাদ্যশস্য মজুত রেখেছে কেন্দ্র সরকার। 
এদিনের ভিডিও–‌বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মুখ্য সচিব রাজীব সিনহা। তিনি রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতি বর্ণনা করেছেন। জানিয়েছেন, জোরকদমে উদ্ধারকাজ চলছে। সেইসঙ্গে সেনা ও এনডিআরএফ–‌সহ কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলো যেভাবে পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজ্যের পাশে দাঁড়িয়েছে, তার জন্য কেন্দ্রকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি। এই নিয়ে গত ৫ দিনে চতুর্থবার বৈঠক করল কমিটি। 
উল্লেখ্য, ঘূর্ণিঝড় আমফান রাজ্যে আছড়ে পড়ার পর মুখ্যমন্ত্রীর আবেদনে সাড়া দিয়ে গত শুক্রবার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রাজ্যে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা দেখার পর প্রাথমিকভাবে ১০০০ কোটি টাকা সাহায্য ঘোষণা করেন তিনি। আরও জানিয়েছেন, ক্ষয়ক্ষতির সঠিক মূল্যায়ন করে কেন্দ্রের কাছে পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট পাঠালে আরও সাহায্য করা হবে।‌

জনপ্রিয়

Back To Top