আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ জম্মু ও কাশ্মীরে জঙ্গি দমন অভিযানে বাহিনীর সাফল্য অব্যাহত। সোমবার সকালে অনন্তনাগে নিরাপত্তারক্ষীদের হাতে এনকাউন্টারে খতম হল তিন জঙ্গি। তাদের মধ্যে এক জন আবার হিজবুল কমান্ডার। তার পরেই পুলিশের ঘোষণা, জম্মুর ডোডা জেলা এখন জঙ্গিমুক্ত। কারণ ওই হিজবুল কমান্ডার মাসুদ আহমেদ ভাটই ছিল সেখানকার শেষ জঙ্গি। 
দক্ষিণ কাশ্মীরের অনন্তনাগের খুল চৌহার এলাকায় এদিন জঙ্গি দমন অভিযানে নামে সেনা, জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশ এবং সিআরপিএফ। গোয়েন্দা সূত্রে খবর পেয়েই ভোররাত থেকে শুরু করে অভিযান। এনকাউন্টারে নিহত হয় ওই হিজবুল কমান্ডার সহ তিন জঙ্গিই। ঘটনাস্থল থেকে একটি একে ৪৭ রাইফেল, দু’‌টো পিস্তল উদ্ধার হয়েছে। 
গত কয়েকদিন ধরেই টানা জম্মু ও কাশ্মীরে জঙ্গি নিধন অভিযান চালাচ্ছে নিরাপত্তাবাহিনী। তাতে সাফল্যও এসেছে। তবে এদিনের সাফল্য অতীতের সবক’‌টিকে ছাপিয়ে গেছে। একটা গোটা জেলাকে জঙ্গিমুক্ত করেছে পুলিশ। জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশ এখন টুইটারে জানিয়েছে, ‘‌১৯ আরআর ইউনিট, সিআরপিএফ ও অনন্তনাগ পুলিশের সহায়তায় খুল চৌহরে যে অভিযান চালানো হয় তাতে দুই লস্কর-ই-তৈবা জঙ্গি এবং এক হিজবুল মুজাহিদিন কমান্ডার মাসুদকে খতম করা হয়েছে। জম্মু জোনের দোদা জেলা এখন পুরোপুরি জঙ্গিমুক্ত হয়ে গেছে।’‌ 

 

জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশের প্রধান দিলবাগ সিং জানিয়েছেন, ‘‌মাসুদের বিরুদ্ধে দোদা পুলিশের কাছে একটি ধর্ষণের মামলা দায়ের হয়েছিল। তখন থেকেই পলাতক ছিল সে। পরে সে হিজবুল মুজাহিদিনে যোগ দেয়  এবং কাশ্মীরে জঙ্গি কার্যকলাপের সঙ্গে যুক্ত হয়ে পড়ে।’‌ গত শনিবারই জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশ জানিয়েছিল যে দক্ষিণ কাশ্মীরের কোকারনাগ, ত্রাল ও খ্রেউয়ের আশপাশে বিদেশি জঙ্গিদের গতিবিধি টের পাওয়া গেছে। দক্ষিণ কাশ্মীরে প্রায় ২৯ জন বিদেশি জঙ্গি সক্রিয় রয়েছে। তাদের খতম করার কথাও জানান কাশ্মীরের আইজিপি বিজয় কুমার। দিলবাগ সিং আগেই জানিয়েছেন, এ বছর এখন পর্যন্ত জম্মু ও কাশ্মীরে হত অন্তত ১০০ জঙ্গি। 

 

জনপ্রিয়

Back To Top