আজকাল ওয়েবডেস্ক: ‌কার্ফু জারি হতে পারে উত্তরপ্রদেশে। অন্তত এমনটাই মনে করছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। না, কোনও সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বা অন্য কোনও ঘটনাকে নিয়ন্ত্রণ করতে নয়। এ বছরের উত্তরপ্রদেশে দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষাকে ঘিরে সরকার বিশেষ ব্যবস্থা করতে চলেছে। জানা গিয়েছে, পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে বসানো হবে সিসি ক্যামেরা এবং কোনও ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা রুখতে ১৪৪ ধারা জারি করা হবে। 
সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, এ বছর দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা দেবে ৬৬ লক্ষেরও বেশি পড়ুয়া। যার জন্য ৮,৫৪৯টি পরীক্ষা কেন্দ্র তৈরি করা হয়েছে। উত্তরপ্রদেশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের নজরদারি চলছে ওইসব পরীক্ষা কেন্দ্রগুলিতে। এই প্রথমবার পরীক্ষায় টুকলি ও নকল রুখতে রাজ্য সরকার এসটিএফকে নিয়োগ করেছে। এসটিএফের কড়া নজরদারিততে চলবে পরীক্ষা। সম্প্রতি পুলিস–প্রশাসন ‘‌নকল–মাফিয়া’‌র চক্রকে পাকড়াও করেছে। এই চক্র পরীক্ষার্থীদের নকল করতে সাহায্য করত। এ বছরই প্রথমবার উত্তরপ্রদেশ সরকার এ ধরনের নকল রুখতে এসটিএফ–পুলিসকে একসঙ্গে নজরদারির কাজে ব্যবহার করছে। এ বছরই সরকার দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষার্থীদের আধার কার্ড নিয়ে আসা বাধ্যতামূলক করে দিয়েছে। 
পড়ুয়াদের পাশাপাশি যে সব শিক্ষক–শিক্ষিকারা পরীক্ষা কক্ষে থাকবেন তাঁদেরও আধার কার্ড নিয়ে আসতে হবে। গত বছরেই বেশ কিছু ভুয়ো শিক্ষক–শিক্ষিকারা পরীক্ষা কেন্দ্রে গার্ড দিতে গিয়ে ধরা পড়েন। পরীক্ষা কেন্দ্রের ১০০ মিটারের মধ্যে জারি করা থাকবে ১৪৪ ধারা। পাঁচ বা পাঁচের অধিক ভিড় থাকলেই পুলিস গ্রেপ্তার করবে। একজন সাব–ইনস্পেক্টর সহ ২ জন কনস্টেবল সব সময় পরীক্ষা কেন্দ্রের বাইরে মোতায়েন করা থাকবে। শিক্ষা দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, ১৫২১টি অতি–স্পর্শকাতর এবং ৫৬৬টি স্পর্শকাতর কেন্দ্র রয়েছে। এই কেন্দ্রগুলির জন্য পুলিসের বিশেষ ব্যবস্থার পাশাপাশি এসটিএফের নজরদারিও থাকবে।  

জনপ্রিয়

Back To Top