মাত্র চার দিনে রেকর্ড সম্পত্তি খোয়ালেন আদানি

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ রাতারাতি ৬ হাজার ৩৫০ কোটি ডলার খুইয়েছেন গৌতম আদানি। ভারতীয় মুদ্রার হিসেবে তা ৪ হাজার ৭০০ কোটি টাকারও বেশি। আর তার ফলে গত চার দিনে শিল্পপতি গৌতম আদানির সংস্থার অবস্থানই বদলে গিয়েছে। গোটা বিশ্বে মাত্র চার দিনে এত বেশি পরিমাণ সম্পত্তি হারানোর দুর্ভাগ্য বোধহয় আর কোনও শিল্পপতির ক্ষেত্রে ঘটেনি। এটা ঘটনা গত এক বছরে আদানির উত্থান হয়েছে উল্কার গতিতে। অন্যতম ধনী মুকেশ আম্বানিকে কড়া চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিয়েছিলেন তিনি। যে হারে তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ বাড়ছিল, তাতে আগামীদিনে আম্বানিকে মসনদ থেকে সরিয়ে তিনিও দেশ তথা এই মহাদেশের ধনীতম হয়ে উঠতে পারেন, এমন জল্পনা জোরালো হচ্ছিল। কিন্তু গত চার দিনে গোটা পরিস্থিতি বদলে গেল।
আদানির সংস্থায় বিনিয়োগ করা মরিশাসের তিনটি সংস্থার অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করে দিয়েছে ‘ন্যাশনাল সিকিউরিটিজ ডিপোজেটরি লিমিটেড’। আর সেই ধাক্কাতেই শেয়ার বাজারে এমন পতন আদানি গ্রুপের। গত সোমবারই আদানি গ্রুপের শেয়ার রাতারাতি ২৫ শতাংশ পড়ে যায়। ৫১ হাজার কোটি টাকার বেশি কমে যায় শেয়ারের দর। তবে আদানি গ্রুপের দাবি ছিল, অ্যাকাউন্টগুলি ফ্রিজ করা হয়নি। এখনও সেগুলি অ্যাকটিভই রয়েছে। যার ফলে কিছুটা হলেও শেয়ার বাজারে উন্নতি হয়। কিন্তু তাতে আশ্বস্ত হতে পারেননি অন্য বিনিয়োগকারীরা। মে মাসের শেষদিকে প্রকাশিত ব্লুমবার্গ বিলিয়নেয়ার্স ইনডেক্স অনুযায়ী, এশিয়ার দ্বিতীয় ধনী ব্যক্তি হন গৌতম আদানি। তাঁর সামনে ছিলেন শুধু মুকেশ আম্বানি। অতিমারীর মধ্যেই প্রায় ৩ লক্ষ কোটি টাকারও বেশি সম্পত্তি বেড়েছিল তাঁর। কিন্তু গত চার দিনে বেশ অস্বস্তির মুখে পড়লেন ৫৮ বছরের গৌতম আদানি।