আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ‘‌সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকলে মহারাষ্ট্রে সরকার গড়ো। আর না থাকলে সেটা স্বীকার কর।’‌ বৃহস্পতিবার বিকেলে সাংবাদিক সম্মেলনে শরিক বিজেপিকে এই ভাষাতে রীতিমতো হুমকি দিলেন শিবসেনার শীর্ষ নেতা তথা রাজ্যসভার সাংসদ সঞ্জয় রাউত। তিনি আরও বলেছেন, ‘সংবিধান বিজেপির ব্যক্তিগত সম্পত্তি নয়, এটা দেশবাসীর। আমরা মহারাষ্ট্রে সংবিধান মেনেই শিবসেনার মুখ্যমন্ত্রী করে সরকার গড়ব।’‌ সঞ্জয় এদিন আবারও সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁদের দল থেকে মুখ্যমন্ত্রী করে সরকার গড়ার সংখ্যাগরিষ্ঠতা আছে এবং সেই প্রমাণ তাঁরা বিধানসভার আস্থাভোটেই দেবেন। সঞ্জয়ের হুঁশিয়ারি, ‘‌শিবসেনা কখনও বিকল্প ছাড়া কথা বলে না।’‌
শুক্রবার শেষ হচ্ছে বর্তমান সরকারের মেয়াদ। শনিবারের মধ্যেই গড়তে হবে নতুন সরকার। এখনও বিজেপি–শিবসেনার মধ্যে দ্বন্দ্ব মেটেনি, উল্টে উত্তরোত্তর বেড়ে চলেছে। শিবসেনা গোপন সূত্রে খবর পায়, তাদের দলের কয়েকজন বিধায়ক তলে তলে বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তারপরই বৃহস্পতিবার সকালে ঠাকরেদের বাড়ি মাতোশ্রীতে এক ঘণ্টা বৈঠকের পর দলীয় শীর্ষ নেতৃত্বের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সব বিধায়কদের মাতোশ্রীর কাছে একটি পাঁচ তারা হোটেলে এনে রাখা হয়েছে দুদিনের জন্য। সূত্রের খবর, বৈঠকে সব বিধায়কই শিবসেনা সুপ্রিমো উদ্ধব ঠাকরেকে ৫০:‌৫০ ফর্মুলার দাবিতে অনড় থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।


এদিন দুপুরেই রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারির সঙ্গে মহারাষ্ট্রের বিজেপি সভাপতি চন্দ্রকান্ত পাটিলের নেতৃত্বে ফের দেখা করে বিজেপি প্রতিনিধি দল। দলে ছিলেন গিরীশ মহাজন, সুধীর মুঙ্গাটিওয়ার এবং আশিস শেলার। পরে পাটিল সাংবাদিকদের বলেন, ‘‌এই নির্বাচনে মানুষ তাদের রায় দিয়েছেন। আমরা রাজ্যপালকে বর্তমান পরিস্থিতি জানিয়েছি। দলই পরবর্তী কর্মসূচি নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবে। খুব শিগগিরি নতুন সরকার গঠিত হবে।’‌ রাজ্যে সরকার গড়ার জন্য আইনি বিকল্প নিয়েই তাঁরা রাজ্যপালের সঙ্গে কথা বলেছেন বলে জানান পাটিল।
অন্যদিকে, এদিন সকালে নাগপুরে আরএসএস–এর সদর দপ্তরে ঝটিকা সফরে যান কেন্দ্রীয়মন্ত্রী নিতিন গডকরি। এরপরই রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন ওঠে বর্তমানে চলা শিবসেনা–বিজেপি দ্বৈরথ কাটানোর উদ্দেশ্যেই গডকরির নাগপুর যাত্রা। কিন্তু সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে সেই সম্ভাবনা নস্যাৎ করে গডকরি জানিয়ে দেন মহারাষ্ট্রে সরকার গড়া নিয়ে আরএসএস প্রধান মোহন ভগবতের কোনও যোগাযোগ নেই। তিনি মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী হতে পারেন  কিনা সেই প্রশ্নের উত্তরে গডকরি সাফ বলেছেন, ‘‌আমি এখন দিল্লিতে আছি। আমার মহারাষ্ট্রে ফেরার কোনও প্রশ্নই নেই। দেবেন্দ্র ফড়নবিশের নেতৃত্বেই সরকার হবে। বিজেপি ১০৫টা আসন জিতেছে। তাহলে মুখ্যমন্ত্রী তো বিজেপি থেকেই হবে।’‌‌ তবে শেষপর্যন্ত শিবসেনার সমর্থন পাওয়া যাবে বলে আশাবাদী গডকরি।
ছবি:‌ এএনআই ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top