‌আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ মাথায় হাত বেঙ্গালুরু রিয়াল এস্টেট ব্যবসায়ীদের। কারণ, ফ্ল্যাট বিক্রি তলানিতে এসে ঠেকেছে ভারতের অন্যতম প্রধান এই মেট্রো সিটিতে। আর ফ্ল্যাট বিক্রি কম হওয়ার পিছনে রয়েছে অত্যাধিক মূল্যবৃদ্ধি। পরিসংখ্যান বলছে, মাত্র কয়েক দশকের মধ্যে রীতিমতো ফুলেফেঁপে উঠেছে এই শহর। যার পিছনে রয়েছে ভিনরাজ্য থেকে আসা বিভিন্ন পেশার সঙ্গে যুক্ত মানুষ। তাঁদের অনেকেই ফ্ল্যাট কিনে বসবাস করতে উৎসাহী। বাকিরা থাকেন বাড়ি ভাড়া করে। কিন্তু গত কয়েকবছরে যেভাবে ফ্ল্যাটের দাম হু–হু করে বেড়ে গিয়েছে, তাতে অস্থায়ী ভাবে বেঙ্গালুরুতে থাকার জন্য মোটা টাকা খরচ করতে রাজি নন অনেকেই। তুলনায় বাড়ি ভাড়া করে থাকতেই পছন্দ করছেন তাঁরা। কারণ, খুব বেশি টাকা খরচ করলে পরবর্তীকালে সেই ফ্ল্যাটই মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। নির্মাণশিল্পের সঙ্গে যুক্ত ব্যবসায়ীদের সংগঠনের কর্তা রাম ওয়ালাসের কথায়, ‘‌যাঁরা বাইরে থেকে এখানে আসেন, তাঁদের অনেকেই তরুণ। তাঁরা এমন কিছু রোজগার করেন না যে, কেরিয়ারের শুরুতেই মোটা টাকা বিনিয়োগ করে ফ্ল্যাট কিনবেন তাঁরা। আর ফ্ল্যাট কিনতে গেলেও যে সেটা কর্মক্ষেত্রের কাছেই হবে, তারও কোনও নিশ্চয়তা নেই।’‌ ‘‌দু’‌টি শোওয়ার ঘর একটি রান্নাঘর এবং একটি শৌচাগারওয়ালা মাঝারিমানের একটি ফ্ল্যাটের দাম বেঙ্গালুরুর বিভিন্ন প্রান্তে ৬৫ থেকে ৮৫ লক্ষ টাকা। তারপরে সেই ফ্ল্যাট সাজাতে খরচ কমপক্ষে ২০ লক্ষ টাকা। সব মিলিয়ে এক কোটি টাকার কাছাকাছি খরচ পড়ে যায় একটি ফ্ল্যাটকে বাসযোগ্য করে তুলতে। এত টাকা খরচ করার পরে যদি অন্য কোনও শহরে চাকরি পাই তখন কী হবে?‌’‌ বলছিলেন বেঙ্গালুরুতেই একটি বহুজাতিক সংস্থায় কর্মরতা মানসী থাপার।
এদিকে মোটা মাইনের তরুণ চাকুরিজীবীদের উঁচু দামে ফ্ল্যাট বেচার লোভে প্রোমোটাররাও ফ্ল্যাটের দাম কমাতে রাজি নন। সব মিলিয়ে বেঙ্গালুরুতে মাথা গোঁজার ঠাঁই ক্রমশই মহার্ঘ হয়ে উঠছে।

জনপ্রিয়

Back To Top