আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অবশেষে যবনিকা পাত মহারাষ্ট্রের রাজনৈতিক নাটকের। শনিবার সকালে শপথগ্রহণের পর মঙ্গলবার বিকেল ৩.‌৩০ মিনিট নাগাদ সাংবাদিক সম্মেলন করে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগের কথা ঘোষণা করলেন বিজেপি নেতা দেবেন্দ্র ফড়নবিশ। একইসঙ্গে স্বীকার করে নিলেন আস্থাভোটের জন্য তাঁদের কাছে পর্যাপ্ত আসন সংখ্যা নেই। নিজেদের গত পাঁচ বছরের কাজের সুফল তুলে ধরে তাঁদের সমর্থনের জন্য রাজ্যবাসীকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন ফড়নবিশ।
এদিন ফড়নবিশ সাংবাদিক সম্মেলনে বললেন, ‘‌জনাদেশ মহাযূতির (‌বিজেপি ও এনসিপির জোট)‌ পক্ষে ছিল। আমরা শিবসেনার সঙ্গে লড়েছিলাম জোট করে। কিন্তু মানুষ বিজেপিকে ভোট দিয়েছে। কারণ ৭০ শতাংশ ভোট পেয়েছে বিজেপি।’‌
এরপরই মুখ্যমন্ত্রী পদ নিয়ে টানাপোড়েনের জন্য দীর্ঘদিনের জোটসঙ্গী শিবসেনাকে তীব্র আক্রমণ করে বলেন, ‘‌শিবসেনা তাদের দাবিদাওয়া চালিয়ে গিয়েছে। বিজেপি কখনও মুখ্যমন্ত্রী পদ নিয়ে কোনও কথা দেয়নি। আমরা সেনার জন্য বহু দিন অপেক্ষা করেছিলাম। কিন্তু ওরা তখন এনসিপি আর কংগ্রেসের সঙ্গে কথা চালিয়ে গিয়েছে। শিবসেনা ভোটের আগেই বলেছিল যে ওদের মুখ্যমন্ত্রীর পদ দেবে ওরা তাদের সঙ্গেই যাবে।’‌
এনসিপি এবং কংগ্রেস নেতৃত্বের সঙ্গে উদ্ধব ঠাকরের নিজে গিয়ে দেখা করা নিয়েও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি ফড়নবিশ। তাঁর শ্লেষাত্মক মন্তব্য, ‘‌যাঁরা কোনওদিনও মাতশ্রী ছেড়ে কোথাও নড়েননি, তাঁরা এনসিপি আর কংগ্রেসের সঙ্গে মিলে সরকার গড়তে মানুষের দরজায় দরজায় ঘুরেছে। ক্ষমতার লোভ এমনই যে শিবসেনা এখন সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে জোট করতে চাইছে।’‌
অজিত পাওয়ার তাঁদের আশ্বাস দিলেও পরে ইস্তফা দেওয়ায় তাঁদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা জোগার করা যায়নি বলে জানিয়ে ফড়নবিশ বললেন, ‘অজিত পাওয়ার বলেছেন ব্যক্তিগত কারণে উনি ইস্তফা দিচ্ছেন। আমরা অন্যদের বিধায়ক কিনব না। আমি আমার ইস্তফা রাজ্যপালকে দিয়ে দেব। এখন থেকে বিরোধী আসনেই বসব আমরা।’‌ আগামী দিনে যে দলই সরকার গড়ুক তাঁদের শুভেচ্ছা জানান তিনি। তারপরই হাল্কা হুঁশিয়ারির সুরে বললেন, ‘‌এই তিন চাকার সরকার কতটা স্থায়ী সরকার হবে তা নিয়ে সন্দেহ আছে। কারণ সবারই তো মতাদর্শের বিরোধিতা আছে। কিন্তু বিজেপি সক্রিয় বিরোধীর মতোই কাজ করবে আর আমজনতার কণ্ঠ তুলে ধরার চেষ্টা করবে।’‌
সাংবাদিক সম্মেলনের পর সেখান থেকেই সোজা রাজভবন রওনা দেন ফড়নবিশ। সেখানে গিয়ে রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারির হাতে পদত্যাগপত্র জমা দেন।
ছবি:‌ এএনআই‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top