লকডাউন বিধি শিথিল হতেই দিল্লির একাধিক জায়গায় জনস্রোত, ফের সংক্রমণ লাগামছাড়া হওয়ার আশঙ্কায় চিকিৎসকরা 

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সবে নিম্নমুখী হতে শুরু করেছে। দিল্লিতে লকডাউন শিথিল হয়েছে। আর এতেই আতঙ্কিত চিকিৎসকরা। শপিং মল বা ট্রেনের ভিড় দেখে তাঁদের আশঙ্কা, দিল্লিতে ফের কোভিডের বিস্ফোরণ ঘটতে পারে। যদিও প্রশাসনের আশ্বাস, সংক্রমণের বাড়বাড়ন্ত দেখলেই ফের বিধিনিষেধ আরোপ করা হবে। 
৫ সপ্তাহের কড়া লকডাউনের পর ১৩ জুন রবিবার থেকে রাজধানীতে লকডাউন শিথিল করার ঘোষণা করেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। শহরতলির ট্রেনগুলি আসনসংখ্যার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চালু হয়েছে। পুরোপুরি খুলে দেওয়া হয়েছে শপিং মল, দোকানপাট। অফিস ও রেস্তরাঁ আংশিক খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেজরি সরকার। এদিকে লকডাউন শিথিল হতেই মঙ্গলবার থেকে শপিং মল থেকে শুরু করে শহরতলির ট্রেনের কামরায় ভিড় উপচে পড়েছে। যা দেখে ফের সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কা করছেন চিকিৎসকেরা। দিল্লির একটি বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক টুইটারে লিখেছেন, ‘লকডাউন উঠে যেতেই গত সপ্তাহান্তে দিল্লির একটি নামকরা শপিং মলে প্রায় ১৯ হাজার মানুষ ভিড় করেছেন। আমরা কি পুরোপুরি পাগল হয়ে গিয়েছি? ফের কোভিড–১৯–এর বিস্ফোরণ ঘটলেই সরকার, হাসপাতাল বা দেশের উপর দোষ চাপিয়ে দেওয়ার অপেক্ষায় থাকুন।’
এটা ঘটনা কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউয়ে দিল্লিতে একসময় হু হু করে সংক্রমণ বেড়েছিল। তবে লকডাউনের পাশাপাশি টিকাকরণ চলতে থাকায় মাস দুয়েক ধরেই গোটা দেশের মতো দিল্লিতেও সংক্রমণ নিম্নমুখী হয়েছে। চিকিৎসকরা মনে করছেন, টিকার যোগ্য দেশের ৯৫ কোটি প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে এখনও পর্যন্ত মাত্র ৫ শতাংশের টিকাকরণ হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সামান্য শিথিলতা ফের সংক্রমণের ঝড় তুলতে পারে।