‌আজকালের প্রতিবেদন- ‘‌দিদিকে বলো’‌য় ফোন করে উদ্ধার কর্ণাটকে বন্যায় আটকে থাকা ২০টি বাঙালি পরিবার। 
দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসিন্দা অরিন্দম বিট ‘‌দিদিকে বলো’‌র নম্বরে ফোন করে জানান, তাঁর বোন ও জামাইবাবু কর্ণাটকের বন্যায় চারদিন ধরে আটকে আছে। কোনওরকম সাহায্য এখনও তাঁদের কাছে পৌঁছয়নি। তিনি অনুরোধ করেন, রাজ্য সরকার কর্ণাটক সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাঁদের উদ্ধারের ব্যবস্থা করুক। 
এই ফোন পাওয়ার পরই রাজ্যের তরফে তৎপরতা শুরু হয়। কিন্তু যেখানে দুর্গতরা আটকে ছিলেন, সেখানকার টেলিফোন ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় তাঁদের অবস্থান নিশ্চিত করা যাচ্ছিল না। সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেন বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের মন্ত্রী জাভেদ খান। তিনি দপ্তরের আধিকারিকদের দুর্গতদের উদ্ধারে দ্রত ব্যবস্থা নিতে বলেন। যোগাযোগ করা হয় কর্ণাটকে। সেখানকার প্রশাসনের তরফেও উদ্যোগ নেওয়া হয়। এরপর সেখানে খুঁজে বের করা হয় বন্যা–‌দুর্গতদের। নৌকোয় নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় ওই বাঙালিদের। 
পরে অরিন্দমবাবু জানান, তাঁর জামাইবাবু ও বোনকে উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁরা নিরাপদে আছেন। 
ইতিমধ্যেই ‘‌দিদিকে বলো’‌ দারুণ সাড়া ফেলেছে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে রোজ বহু ফোন, মেসেজ ও ই–মেল আসছে। ‘‌দিদি’‌কে বলে বিভিন্ন সমস্যার সুরাহাও হচ্ছে অনেকের। বাংলার পাশাপাশি বাংলার বাইরেও সমস্যায় পড়লে সাহায্য পাচ্ছেন মানুষ। ‘‌দিদিকে বলো’ কর্মসূচি‌র সাফল্য যে খুব দ্রুত বাংলার বাইরেও ছড়িয়ে পড়তে চলেছে, এই ঘটনাই তার প্রমাণ। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top