আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় জ্বলছে গোটা দেশ। শাহিনবাগে গত একমাস ধরে শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান–বিক্ষোভে সামিল হয়েছিলেন একশোর বেশি মহিলারা। দিল্লি পুলিশ প্রথমে বলপ্রয়োগ করলেও কাজ হয়নি। বিক্ষোভকারীরা অবস্থান থেকে সরে আসেননি। তবে অবস্থান বিক্ষোভের জেরে শাহিনবাগ–কালিন্দিকুঞ্জ এলাকায় যানবাহন চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছিল। কালিন্দিকুঞ্জের কাছেই অবস্থিত শাহিনবাগ। এই অঞ্চল দিয়েই দিল্লির নিকটবর্তী ফরিদাবাদ ও নয়ডায় যেতে হয়। গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চলে অবস্থান–বিক্ষোভের ফলে যানবাহন চলাচল ভীষণ বিঘ্নিত হচ্ছিল। যাত্রীরা অসুবিধায় পড়ছিলেন। এরপরই দিল্লি হাইকোর্টে পিটিশন দাখিল করা হয়। অবশেষে দিল্লি হাইকোর্ট জানিয়েছে, বুঝিয়েসুজিয়ে এই অবস্থান–বিক্ষোভ তুলতে হবে। আইনশৃঙ্খলা নিজের হাতে তোলা যাবে না।
এই রায় আসার পরেই পুলিশ উদ্যোগ নিয়েছে। মঙ্গলবারই বিক্ষোভকারীদের বোঝানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে নিয়ে বিক্ষোভকারীদের বোঝাতে শুরু করেছে দিল্লি পুলিশ। 
দিল্লি হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি ডি এন প্যাটেল ও বিচারপতি সি হরিশঙ্করের বেঞ্চ দিল্লি পুলিশকে জানিয়ে দিয়েছে, ‘‌বিক্ষোভকারীদের বুঝিয়েসুঝিয়ে তুলতে হবে। কোনওরকম বলপ্রয়োগ করা যাবে না।’‌  
 

জনপ্রিয়

Back To Top