কোভিডের বিরুদ্ধে ৭৭.‌৮%‌ কার্যকর কোভ্যাক্সিন, বলছে ৩য় পর্যায়ের ট্রায়ালের নথি

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দেশবাসীকে টিকা দেওয়ার জন্য ছাড়পত্র মিলেছিল ৫ মাস আগেই। এবার কোভ্যাক্সিনের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের রিপোর্ট জমা দিয়েছিল ভারত বায়োটেক সংস্থা। ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়া (‌ডিসিজিআই)‌–র কাছে। জানা গিয়েছে কোভিডের বিরুদ্ধে ৭৭.‌৮ শতাংশ কার্যকর কোভ্যাক্সিন। দেশ জুড়ে ২৫ হাজার ৮০০ জনের ওপর তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল চালানো হয়েছে।
ট্রায়ালের নথি নিয়ে এদিন বৈঠকে বসে ডিসিজিআই–এর সাবজেক্ট এক্সপার্ট কমিটি। তার পরেই কোভ্যাক্সিনে চূড়ান্ত সিলমোহর দেওয়া হয়েছে। জানানো হয়েছে এর কার্যকারিতা। এবার হু–র ছাড়পত্রের জন্য অপেক্ষা।
এখনও কোনও জার্নালে এই ট্রায়ালের নথি প্রকাশ করা হয়নি। নিয়ামক সংস্থার কাছে ট্রায়ালের নথি জমা করার পর এটাই দস্তুর। তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালের নথির ‘‌প্রথম অন্তর্বর্তী পর্যবেক্ষণ’‌ করে জানানো হয়েছি, এই টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার পর সংক্রমণের সম্ভাবনা ৮১ শতাংশ ক্ষেত্রে আর থাকে না। 
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু–র এমার্জেন্সি ইউস লিস্টিং (‌ইইউএল)‌–এও নাম ওঠেনি কোভ্যাক্সিনের। এজন্য সংস্থাকে প্রয়োজনীয় নথি জমা করতে হবে হু–র কাছে। চূড়ান্ত নথি জমা করার আগে বুধবার হু কর্তাদের সঙ্গে ‘‌প্রি–সাবমিশন’‌ বৈঠকে বসবে ভারত বায়োটেক। এই বৈঠকে হু বিশষেজ্ঞরা চূড়ান্ত নথিতে কী বিষয় উল্লেখ করতে হবে, সেই নিয়ে পরামর্শ দেবে। মূলত টিকার ট্রায়ালের নথি, সুরক্ষা, গুণমান, সংক্রমণ রুখতে কতটা সক্রিয়— এসবই জানাতে হয় হু–কে। 
এই ইইউএল তালিকায় কোভ্যাক্সিনের নাম উঠলে তা বিদেশে রপ্তানির ক্ষেত্রে বাধা থাকবে না। এই টিকা নিয়ে বিদেশে যাওয়ার ক্ষেত্রেও ছাড়পত্র পেতে অসুবিধা হবে না ভারতীয়দের।